সব খবর সবার আগে।

আজ মনের সব কালিমা দূর করে, জীবনে স্বাচ্ছন্দ্য ফিরে আনতে উদযাপন করুন বুদ্ধ পূর্ণিমা

আজ বৌদ্ধ ধর্মপ্রাণ মানুষদের কাছে এক বিশেষ দিন। আজকের দিনেই আড়াই হাজার বছর আগে এই দিনে মহামতি গৌতম বৌদ্ধ জন্মগ্রহণ করেছিলেন। তাই আজকের দিনটা বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীদের কাছে প্রধান ধর্মীয় উৎসব। শুধু জন্মতিথিই নয়, বৌদ্ধধর্ম মতে বৈশাখি পূর্ণিমার দিন তাঁর জন্ম, বোধিলাভ এবং প্রয়াণ, তাই আজকের দিনকে ‘বুদ্ধ পূর্ণিমা’ হিসেবে উদযাপন করা হয়।

আজ বুদ্ধ পূর্ণিমার পূর্ন লগ্নে রাতের বেলায় অযোধ্যা পাহাড়ে প্রথাগত শিকারের রীতি পালন করা হয়। দেশজুড়ে করোনার আবহে এখন গৃহবন্দী সকলেই। পর্যটকহীন, সুনসান পাহাড়ের কোলে এবার বাইরে থেকে শিকারিদের আসার সম্ভাবনা খুবই কম। লকডাউনের জন্য চলছে না কোনো পরিবহন। তবু নিশ্চিন্ত হতে পারছেন না বন দফতরের কর্মীরা। সেজন্য পাহাড় ও পাহাড়তলিতে গ্রামগুলিতে ঢোল পিটিয়ে সচেতনতার প্রচারে নেমেছেন তারা। স্থানীয় মানুষ এখন বন্যপ্রাণী রক্ষায় বন দফতরের পাশে রয়েছে। তাই এবার শিকার পুরোপুরি বন্ধ থাকবে বলে আশা বনকর্তাদের।

প্রতি বছর উৎসবমুখর পরিবেশে এই দিনটি উদযাপন করেন ধর্মপ্রাণ বৌদ্ধ ধর্মাবলম্বীরা। তবে এই বছর করোনার কারণে কোনো উৎসবই পালন করছেন না তাঁরা। ঘরোয়াভাবে প্রার্থনার মধ্য দিয়েই দিনটি উদযাপন করা হবে। এবার উড়বে না কোনো ফানুসও। পুরুলিয়া বন বিভাগের ডিএফও রামপ্রসাদ বাদানা বলেন, ‘শিকার যাতে পুরোপুরি বন্ধ হয়, তারই চেষ্টায় আছি আমরা। মানুষের এই অযথা রক্তপাতের নেশা বন্ধ করতে হবে অযোধ্যা পাহাড়ে।’ টালিগঞ্জের বৌদ্ধ মঠের তরফে এই দিন ঘরে থেকেই আরাধনার মাধ্যমে দিনটি পালনের আহ্বান জানানো হয়েছে।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
Comments
Loading...
Share