সব খবর সবার আগে।

মহাকাশের‌ও বেসরকারিকরণ! একা ‘ইসরো’ নয়, দেশে এবার রকেট বানাতে পারবে বেসরকারি সংস্থাও

বেসরকারিকরনের পথে মহাকাশ‌ও! ভারতের মহাকাশ গবেষণার ক্ষেত্রে ঢালাও সংস্কারের পথে হাঁটছে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর সরকার। মহাকাশের ভার‌ও তুলে দেওয়া হল বেসরকারি হাতে। আর একা ইসরো নয়। ভারতে এ বার মহাকাশে পাড়ি জমানোর জন্য রকেট বানাতে পারবে বেসরকারি সংস্থাও। একই সঙ্গে তাঁরা বানাতে পারবে কৃত্রিম উপগ্রহ আর তার আনুষঙ্গিক যন্ত্রপাতি। ইসরোর বানানো উপগ্রহগুলিকে কক্ষপথে পাঠানোর জন্য এ বার রকেট সরবরাহ করতে পারবে বেসরকারি সংস্থা আজ অর্থাৎ বৃহস্পতিবার এক সাংবাদিক সম্মেলনে এমন কথাই জানিয়েছেন ইসরোর চেয়ারম্যান কে শিবন। তিনি এও জানিয়েছেন, এখন থেকে বিভিন্ন গ্রহে ইসরোর গবেষণামূলক অভিযানেও নানা রকম ভাবে অংশ নিতে পারবে দেশের বেসরকারি সংস্থাগুলি।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা বুধবার এই অনুমোদনটি দান করেছে। তাঁরা জানিয়েছে, মহাকাশ গবেষণা ও অভিযানের নানা দিকে তো বটেই, এমনকী, বিভিন্ন গ্রহে, উপগ্রহে ইসরোর বিভিন্ন অভিযানেরও শরিক হতে পারবে বেসরকারি সংস্থাগুলি। তারা স্বাধীন ভাবেও নামতে পারবে মহাকাশ গবেষণায়।

দেশে মহাকাশ গবেষণায় ইসরো ছাড়াও বেসরকারি সংস্থাগুলিকে টেনে আনার জন্য আলাদা একটি সংস্থা তৈরি করারও প্রস্তাব অনুমোদিত হয়েছে গতকাল কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকে। সেই সংস্থার নাম দেওয়া হচ্ছে ‘ইন্ডিয়ান ন্যাশনাল স্পেস প্রোমোশন অ্যান্ড অথরাইজেশন সেন্টার (ইন-স্পেস)’।

তবে ওয়াকিবহাল মহলের একাংশের মতে, মহাকাশ গবেষণার বিপুল ব্যয় ভার কিছুটা হাল্কা করতেই মোদী সরকারের এই পদক্ষেপ। যাকে সরকারের তরফে ‘ঐতিহাসিক সংস্কার’ বলা উল্লেখ করা হয়েছে।

কেন্দ্রীয় সরকারের এই সিদ্ধান্তে ভারতে মহাকাশ গবেষণায় ইসরোর একাধিপত্য কিছুটা কমল কি? এই প্রশ্নের জবাবে ইসরো চেয়ারম্যান কে শিবন জানিয়েছেন, ইসরো আগের মতোই মহাকাশ গবেষণার উন্নততর দিকগুলিতে নিজেকে নিয়োজিত করবে।

You might also like
Comments
Loading...