সব খবর সবার আগে।

Congress Leader on Rape Victim: “আকর্ষণীয় মহিলারাই ধর্ষিত হন”, কংগ্রেস নেতার কুরুচিকর টুইটে সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড়

জম্মু-কাশ্মীর প্রদেশের কংগ্রেস নেতা সলমন নিজামি এমনিতে তাঁর বিজেপি বিরোধী টুইটের কারণে মাঝেমধ্যেই খবরের শিরোনামে উঠে আসেন। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর বিরুদ্ধেও একাধিক বিরোধী ও মিথ্যে খবর প্রচার করতে দেখা যায় তাঁকে। সম্প্রতি, তাঁর পুরনো কিছু টুইট সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ ভাইরাল হয়েছে। এইসব টুইটেই দেখা গিয়েছে, তিনি মহিলাদের ধর্ষণ হওয়ার জন্য বেশ কিছু কুরুচিকর মন্তব্য করেছেন।

আজ, শুক্রবার তিনি একটি টুইট করে বলেন গতকাল ক্যাপিটল হিলে যে ব্যক্তিকে ভারতীয় পতাকা  হাতে দেখা গিয়েছে, তিনি নাকি আসলে নরেন্দ্র মোদীর সমর্থক। এই সমর্থকেরাই “আবকি বার ট্রাম্প সরকার”, এই ক্যাম্পেন করেন। কিন্তু জানা যায়, আদতে এটি মিথ্যে খবর। সংশ্লিষ্ট ওই ব্যক্তির নাম ভিনসেন্ট জেভিয়ার্স ও তিনি কেরালার একজন ইঞ্জিনিয়ার। তিনি আমেরিকাতে থাকেন ও রিপাবলিকান পার্টির এক সদস্য এও জানা গিয়েছে যে ওই ব্যক্তি কংগ্রেস সাংসদ শশী থারুরেরও একজন সমর্থক।

সলমনের এই পোস্টের পর তাঁর পুরনো কিছু কুরুচিকর টুইট ক্রমশ ভাইরাল হতে থাকে। ২০১৩ সালে তিনি একটি পোস্ট করেন যাতে তিনি দাবী করেন যে শুধুমাত্র আকর্ষণীয় মহিলারাই ধর্ষিত হন। সেই বছরেই তিনি আরও একটি টুইট করেন যার মাধ্যমে তিনি দাবী করেন মহিলারা নিজেদের পোশাকের দ্বারাই ছেলেদের আকর্ষিত করে ও এই আবেদনী আকর্ষণই ধর্ষণের প্রধান কারণ। অন্য একটি টুইটে তাঁর দাবী, মহিলাদের পোশাকই নাকি তাদের বিপদের কারণ।

তাঁর এই টুইট নিয়ে সোশ্যাল মিডিয়া তোলপাড়। বিভিন্ন মহল থেকে মানুষজন তাঁর দিকে আঙুল তুলেছেন। তাঁর এই বিরূপ মন্তব্যের জন্য সমালোচিত হয়েছে সলমন নাজিম। সবচেয়ে ঘৃণ্য বিষয় এই যে এই টুইটগুলি তিনি করেন দিল্লিতে নির্ভয়া গণধর্ষণ ও হত্যার কিছুদিন পরেই। গোটা দেশ যখন নির্ভয়া কাণ্ডের দুর্বিষহ চিন্তা থেকে বেরিয়েই উঠতে পারেনি, সেই জায়গায় দাঁড়িয়ে সলমন নিজামির এই ধরণের টুইট অত্যন্ত নিম্নমনের পরিচয় দেয়।

আজ তাঁর এই পুরনো টুইটগুলি ভাইরাল হওয়ার পর সলমন টুইটগুলি মুছে দেন। এরপর অন্য একটি টুইট করেন তিনি, যা নিয়েও ফের বিতর্কের মুখে পড়েন তিনি। আজকের টুইটে তিনি লেখেন, যে এই পুরনো টুইটগুলি নাকি তখন বিভিন্ন টুইট ও রাজনৈতিক নেতাদের জবাব দেওয়ার জন্য ছিল কারণ তখন তিনি একজন সাংবাদিক ছিলেন। কিন্তু এবার প্রশ্ন উঠছে যে, সাংবাদিক হলেই কী ধর্ষণের মতো অত্যন্ত সংবেদনশীল একটা ঘটনাকে এভাবে আলোচনা করার অধিকার জন্মায়?

প্রসঙ্গত, সলমন নিজামি কংগ্রেস নেতা রাহুল গান্ধীর বেশ কাছের মানুষ। ২০১৪ সালে রাহুলের নির্দেশেই তাঁকে জম্মু-কাশ্মীর প্রদেশ কংগ্রেসের সভাপতি নির্বাচন করা হয়।

You might also like
Comments
Loading...