দেশ

দেশের পরবর্তী রাষ্ট্রপতি বানানো হোক রতন টাটাকে, দাবীর ঝড় সোশ্যাল মিডিয়া জুড়ে, আবেগপ্রবণ দেশবাসী

ভারতের বর্তমান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দের কার্যকালের মেয়াদ ২০২২ সালের জুলাই মাসেই শেষ হচ্ছে। আর এরই মধ্যে দেশের আগামী রাষ্ট্রপতি কে হতে চলেছেন, এ নিয়ে নানান জল্পনা তৈরি হয়েছে। তবে এসবের মধ্যে বারবার উঠে আসছে রতন টাটার নাম। সোশ্যাল মিডিয়ায় দাবীর ঝড় উঠেছে যে দেশের পরবর্তী রাষ্ট্রপতি হিসেবে রতন টাটাকেই বেছে নেওয়া হোক। এর জন্য প্রচারও শুরু হয়ে গিয়েছে।

ইতিমধ্যেই টুইটারে #RatanTata4President ক্যাম্পেন শুরু করে দেওয়া হয়েছে। রতন টাটার খ্যাতি দেশজোড়া, এই কারণে তাঁকেই রাষ্ট্রপতির পদে দেখতে চাইছেন দেশবাসী। এই বিষয়ে সহমত পোষণ করেছেন বিখ্যাত তামিল প্রযোজক নাগা বাবুও। তবে রতন টাটার পক্ষে এখনও পর্যন্ত কোনও মন্তব্য করা হয়নি।

আরও পড়ুন- অভিনব প্রতিবাদ কংগ্রেস নেতার, বানান শেখার জন্য দিলীপ ঘোষকে পাঠানো হল বর্ণপরিচয়

একই ব্যক্তি পরপর দু’বার রাষ্ট্রপতি পদে থাকতে পারেন না, এমন কোনও নিয়ম সংবিধানে কিন্তু নেই। তবে এখন প্রতি ৫ বছর অন্তর নতুন রাষ্ট্রপতি নির্বাচন ট্রেন্ড হয়ে দাঁড়িয়েছে। পরবর্তী রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য বিরোধী পক্ষরাও প্রস্তুতি শুরু করে দিয়েছে বলেই জানা যাচ্ছে।

দেশের প্রথম রাষ্ট্রপতি ডঃ রাজেন্দ্র প্রসাদ পরপর দু’বার রাষ্ট্রপতি নির্বাচিত হয়েছিলেন। এরপর থেকে এমন সৌভাগ্য আর কোনও রাষ্ট্রপতির হয়নি। রাষ্ট্রপতি পদের জন্য ৭৫ ঊর্ধ্ব কোনও ব্যক্তিকে নির্বাচনের পক্ষপাতী নন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। এদিকে চলতি বছরের ১লা অক্টোবর ৭৬ বছরে পা রাখবেন বর্তমান রাষ্ট্রপতি রামনাথ কোবিন্দ। এই কারণে তিনি ফের রাষ্ট্রপতি হবেন কী না, এ নিয়ে টানাপড়েন চলছে।

তবে দেশের পরবর্তী রাষ্ট্রপতি হিসেবে অনেকেরই নাম উঠে এসেছে। ইউপিএও রাষ্ট্রপতি নির্বাচনে অংশ নিতে পারে বলে জানা যাচ্ছে। আবার বিরোধী দলের মধ্যে শরদ পাওয়ারের নামও উঠে আসছে পরবর্তী রাষ্ট্রপতি হিসেবে। এই তালিকায় নাম রয়েছে রাজ্যসভার চেয়ারম্যান ভেঙ্কাইয়া নাইডুরও। আবার ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে উঠে আসছে নীতিশ কুমারের নামও।

আরও পড়ুন- ৫ দিনে করোনায় আক্রান্ত ২৪২ শিশু, সত্যিই কী তবে তৃতীয় ঢেউয়ে আশঙ্কা শিশুদের?

তবে সকলের মধ্যে নজর কেড়েছেন রতন টাটা। সোশ্যাল মিডিয়ায় ঝড় উঠেছে তাঁকেই আগামী রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের জন্য। তবে এ নিয়ে রতন টাটা কোনও মন্তব্য করেন নি এখনও পর্যন্ত। আর কেন্দ্রের তরফেও এই বিষয়ে কিছু বলা জানানো হয়নি।

Related Articles

Back to top button