সব খবর সবার আগে।

বুথ দখল, ছাপ্পা ভোটে অভিযুক্ত কাউকে রেয়াত করা হবে না, কড়া হাতে দমনের নির্দেশ সুপ্রিম কোর্টের

বুথ দখল করা বা ছাপ্পা ভোট দেওয়া, এসমস্ত ঘটনা কড়া হাতে দমন করতে হবে। এসব কোনওভাবেই মেনে নেওয়া যাবে না। গতকাল, শুক্রবার এমনটাই জানিয়ে দিল সুপ্রিম কোর্ট। এদিন ১৯৮৯ সালে নভেম্বর মাসে ঝাড়খণ্ডে লোকসভা নির্বাচনের সময় বুথের বাইরে বন্দুক নিয়ে ঝামেলায় অভিযুক্ত আটজনকে সাজার ঘোষণা করে শীর্ষ আদালত। সেই প্রসঙ্গেই এই নির্দেশ দেয় আদালত।

এদিন এই বিষয়ে জাস্টিস ডিওয়াই চন্দ্রচূড় ও এমআর শাহ বলেন, “নির্বাচনী ব্যবস্থার মূল সুরটি হল যাতে ভোটাররা তাদের পছন্দের প্রার্থীকে স্বাধীনভাবে ভোট দিতে পারেন। বুথ দখল করা, ছাপ্পা ভোট দেওয়ার মতো বিষয়গুলিকে কড়া হাতে দমন করতে হবে। কারণ এটা শেষ পর্যন্ত দেশের গণতন্ত্র ও আইন ব্যবস্থাকে ক্ষতিগ্রস্ত করে”।

আরও পড়ুন- স্বেচ্ছাচারীতা মমতার, নির্বাচনে তৃণমূলের হয়ে কাজ করায় পদোন্নতি হল ৭৭ যুগ্ম সচিবের

ঝাড়খন্ডের এই ঘটনায় অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে কড়া ব্যবস্থা নিয়েছে শীর্ষ আদালত। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, তারা সেই সময় বিজেপির এক কর্মীর কাছ থেকে ভোটার স্লিপ কেড়ে নেওয়ার চেষ্টা করেছিল। কিন্তু সেই কর্মী তা না দেওয়ায় শুরু হয় মারধর। এর পাশাপাশি সেই সময় গুলিও ছোঁড়ে তারা।

এই ঘটনার রায় দিতে গিয়েই এদিন বিচারপতি জানান, অবাধ নির্বাচনের অধিকারকে যারা বিঘ্ন করার চেষ্টা করবে, আদালত তাদের কাউকে ছেড়ে কথা বলবে না।

অন্যদিকে, বিচারপতিদের বেঞ্চের তরফে জানানো হয়েছে, লোকসভা ও বিধানসভা ভোটে গোপনীয়তা বজায় রাখা অত্যন্ত প্রয়োজন। নির্ভয়ে যাতে কোনও ঝামেলা ছাড়া যাতে ভোটাররা ভোট দিতে পারেন, সেদিকটাও নিশ্চিত করা খুব প্রয়োজন। গোপন ভোট যদি প্রকাশ্যে এসে যায় তবে তিনি ভয় পেতে পারেন। এই কারণে সমস্ত সতর্কতা অবলম্বন করা অত্যন্ত জরুরী।

You might also like
Comments
Loading...