দেশ

তৃণমূলের অনেক নেতাই দুর্নীতির সঙ্গে জড়িত, অমিত শাহ্‌’র সঙ্গে বৈঠকের পর ১০০ জন তৃণমূল নেতার নাম দিলেন শুভেন্দু, কারা রয়েছেন তালিকায়?

আজ, মঙ্গলবার দিল্লির সংসদ ভবনে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ’র (Amit Shah) সঙ্গে বৈঠক করেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)। এসসসি দুর্নীতিতে পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের (Partha Chatterjee) গ্রেফতারি ও তাঁর ঘনিষ্ঠ বান্ধবীর ফ্ল্যাট থেকে কোটি কোটি টাকা উদ্ধারের পর শাহ্‌’র সঙ্গে শুভেন্দুর এই বৈঠক যে বেশ তাৎপর্যপূর্ণ তা বাহুল্য।

পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের গ্রেফতারি ও তাঁর নানান সম্পত্তির হদিশ মেলা ও রাজ্যের নানান দুর্নীতি নিয়ে মমতা সরকারকে কীভাবে বেকায়দায় ফেলা যায়, সেই আলোচনাই এই বৈঠকে হয়েছে বলে জানা যাচ্ছে। সূত্রের খবর অনুযায়ী, এদিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে ১০০ জন তৃণমূল নেতার নামের একটি তালিকা দিয়েছেন শুভেন্দু। এই ১০০ জন পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের সঙ্গে ঘনিষ্ঠভাবে কাজ করতেন, সেই বিষয়টিও অমিত শাহ্‌’র নজরে এসেছেন নন্দীগ্রামের বিধায়ক।

পার্থ চট্টোপাধ্যায় এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতিতে গ্রেফতার হওয়ার পর থেকেই এই ঘটনাকে হাতিয়ার করে রাজ্য সরকারকে তুলোধোনা করতে বাদ যায়নি কোনও বিরোধী দলই। এই নিয়ে যে আজ শাহ ও শুভেন্দুর মধ্যেও জব্বর আলোচনা হয়েছে, তা বেশ স্পষ্ট। এও জানা গিয়েছে যে বাংলায় যাতে শীঘ্রই নাগরিকত্ব সংশোধনী আইন প্রয়োগ করা যায়, সেকথাও শাহ্‌’কে জানিয়েছেন শুভেন্দু।

এদিন বৈঠকের পর সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলতে গিয়ে বিস্ফোরক দাবী করেন শুভেন্দু। বলেন, “১০০-র বেশি বিধায়ক এবং তৃণমূলের তোলাবাজের নাম কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে দিয়েছি যাঁরা গোটা বাংলায় টাকা তোলার র‌্যাকেট চালায়। পুলিশের নিরাপত্তা নিয়ে গ্রিন করিডর বানিয়ে ভাইপোর বাড়ি ও পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বাড়িতে পাঠিয়েছেন। উনি আমায় কথা দিয়েছেন, এই দুর্নীতির পূর্ণ তদন্ত হবে”।

শুভেন্দু এও জানান যে এটা যে স্বাধীনতার পরে সবচেয়ে বড় দুর্নীতি তা শাহও মেনেছেন। শুভেন্দুর কথায়, “হরিয়ানায় তিন হাজার, ত্রিপুরায় ১১ হাজার চাকরিতে দুর্নীতি হয়েছিল। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে ৭৫ হাজার চাকরির মধ্যে ৫০-৫৫ হাজার বিক্রি করা হয়েছে। একা পার্থ, অপা, মপারা যুক্ত নন। প্রচুর কালেক্টর আছে। ব্লক অনুযায়ী কালেক্টর আছে, জেলা অনুযায়ী কালেক্টর আছে। ১০০ জনের নাম দিয়েছি। তার মধ্যে বিধায়ক, সাংসদ রয়েছেন। মন্ত্রীও রয়েছেন। চার বিধায়কের লেটারপ্যাড-সব বিভিন্ন তথ্য প্রমাণও জমা দিয়েছি। যাঁরা টাকা তুলেছেন। আমি চেয়েছি, আরও কড়া তদন্ত হোক। তদন্তকে একেবারে মূলে নিয়ে যেতে হবে”। তবে এদিন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর হাতে তৃণমূলের কোন কোন নেতার নাম শুভেন্দু তুলে দিলেন, এখন সেই নিয়ে বেড়েছে জল্পনা।

Related Articles

Back to top button