সব খবর সবার আগে।

মোদী ম্যাজিক! গত বছর জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপ হ্রাস পেয়েছে প্রায় ৬৩.৯৩ শতাংশ, বলছে রিপোর্ট

ফের একবার জয় মোদী সরকারের। ২০২০ সাল শুধু ভারতবর্ষ নয় গোটা বিশ্বের কাছে বিভীষিকার মতো। অতিমারি থেকে শুরু করে, ধ্বংস, ঝড়, বিপর্যয়, মৃত্যু, সবকিছুর সাক্ষী থেকেছে এই বছর। কিন্তু এই বছরেই এত খারাপের মধ্যেও ঘটেছে কিছু ভালো ঘটনা। জম্মু-কাশ্মীর, যেখানে ভারতের সবথেকে বেশি জঙ্গি কার্যকলাপ হয়ে থাকে, সেখানেই জঙ্গি কার্যকলাপ ও এই জাতীয় ঘটনা হ্রাস পেয়েছে প্রায় ৬৩.৯৩ শতাংশ। এমনটাই জানিয়েছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

সংবাদ সংস্থা সূত্রে জানা গিয়েছে যে, গত বছরের শুরুর থেকে ১৫ই নভেম্বর ২০২০ পর্যন্ত একটি রিপোর্ট তৈরি করেছে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক। সেই রিপোর্ট অনুযায়ী, গত বছর জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গি কার্যকলাপ ও জঙ্গি ঘটনা অনেকটাই কমেছে। এর নেপথ্যে যে মোদী সরকারের চালু করা আইন রয়েছে, তা বলাই বাহুল্য। শুধু জঙ্গি কার্যকলাপ হ্রাসই নয় গত বছর এই কেন্দ্রশাসিত অঞ্চলে সেনাবাহিনীর হতাহতের সংখ্যা হ্রাস পেয়েছে প্রায় ২৯.১১ শতাংশ ও সাধারণ মানুষের হতাহতের সংখ্যাও কমেছে প্রায় ১৪.২৮ শতাংশ পর্যন্ত।

এই রিপোর্টে আরও জানা গিয়েছে যে এই অঞ্চলে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদীর চালু করা উন্নয়ন প্রকল্পের মাধ্যমে প্রায় ৩৬,৩৮৪টি পাকিস্তান থেকে স্থানচ্যুত পরিবার যারা জম্মু-কাশ্মীরে জায়গা দখল করে ছিল, সেই প্রত্যেক পরিবারকে এককালীন সাড়ে পাঁচ লক্ষ টাকার আর্থিক সাহায্য করা হয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের তরফ থেকে জানানো হয় যে নতুন কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখে কেন্দ্র সরকার পরিচালিত আইনের দ্বারাই এই উন্নতি সম্ভব হয়েছে।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের ৫ই আগস্ট স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ জম্মু-কাশ্মীরে ৩৭০ ধারা ও ৩৫এ ধারা রোড করেন। এর জেরে জম্মু-কাশ্মীর দুটি আলাদা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল জম্মু-কাশ্মীর ও লাদাখে পরিণত হয়।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...