দেশ

নিজের নাবালিকা মেয়েকে ধ’র্ষ’ণ করে জেল খাটছে, সেই ধ’র্ষ’ককে দিয়েই জেলের মধ্যে ম্যাসাজ নেন AAP মন্ত্রী

কিছুদিন আগেই একটি ভিডিও বেশ ভাইরাল হয় সোশ্যাল মিডিয়ায়। সেখানে দেখা যায় আর্থিক তছরুপের দায়ে তিহার জেলে থাকা আম আদমি পার্টির নেতা তথা দিল্লির স্বাস্থ্যমন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈন জেলের মধ্যেই এক ব্যক্তিকে দিয়ে ম্যাসাজ নিচ্ছেন। সেই ভিডিও সামনে আসার পরই বেশ হুলস্থূল পড়ে গিয়েছিল। যদিও আপ-এর তরফে দাবী করা হয়েছিল যে শিরদাঁড়ায় সমস্যার কারণে সত্যেন্দ্র জৈন ফিজিওথেরাপি করাচ্ছিলেন।

এবার জেল সূত্রে খবর মিলল যে ব্যক্তি সত্যেন্দ্র জৈনের ‘ফিজিওথেরাপি’ করছিলেন, তিনি আসলে একজন ধ’র্ষ’ক আর ওই জেলেই এক বন্দি। সূত্রের খবর, ওই যুবকের নাম রিঙ্কু। তার বিরুদ্ধে নিজেরই নাবালিকা মেয়েকে যৌ’ন নির্যাতন করার অভিযোগ উঠেছিল। গত বছর নিজের বাবার বিরুদ্ধে তাকে যৌ’ন হেনস্থা করার অভিযোগ আনে ওই যুবকের দশম শ্রেণীর পড়ুয়া মেয়ে। এরপর পকসো আইনের নানান ধারায় ধ’র্ষ’ণের মামলা রুজু করা হয় রিঙ্কুর বিরুদ্ধে। আপাতত তিহার জেলে বন্দি রয়েছে সে। সেই রিঙ্কুই সত্যেন্দ্রকে ম্যাসাজ করে দিচ্ছিল বলে জানা গিয়েছে।

বলে রাখি, চলতি বছরের মে মাসে আর্থিক তছরুপ ও হাওয়ালা লেনদেনের মামলায় ইডি গ্রেফতার করে আপ মন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনকে। এরপর থেকেই তিনি তিহার জেলে রয়েছেন। তবে তিনি যে সেখানেও বিলাসবহুল জীবন কাটাচ্ছেন, তা কেউ আঁচ করতে পারে নি। যে ভিডিওটি ভাইরাল হয়, তাতে দেখা গিয়েছিল, মন্ত্রী সত্যেন্দ্র জৈনের সেলে যে সিসিটিভি ক্যামেরা রয়েছে, তার ফুটেজেই দেখা গিয়েছে যে বেশ আরাম করে শুয়ে ম্যাসাজ নিচ্ছেন তিনি। বেডে শুয়ে কিছু কাগজপত্র দেখছেন সত্যেন্দ্র জৈন। আর এক ব্যক্তি তার পায়ে, পিঠে, মাথায় ভালোভাবে ম্যাসাজ করে দিচ্ছেন। 

তবে আপ-এর তরফে এই ম্যাসাজ দেওয়ার অভিযোগ উড়িয়ে দেওয়া হয়। গতকাল, সোমবার মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরীবাল দাবী করেন যে ম্যাসাজ নয়, ওই ভিডিও আসলে একটি ফিজিওথেরাপি সেশনের অংশ। তবে নতুন এই তথ্য প্রকাশ পাওয়ার পর এখনও মুখ কোনও প্রতিক্রিয়া মেলেনি আপ-এর তরফে।

উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই তিহার জেলের সুপারিন্টেন্ডেন্ট অজিত কুমারের বিরুদ্ধে অভিযোগ উঠেছিল যে তিনি জেলবন্দি মন্ত্রীদের জন্য নিয়মিত ভিআইপি পরিষেবার ব্যবস্থা করছেন। এই নিয়ে ইতিমধ্যেই দিল্লির লেফটেন্যান্ট গভর্নরের তরফে একটি তদন্ত কমিটি গঠন করেছেন।

Related Articles

Back to top button