সব খবর সবার আগে।

‘খেলা’র অনুমতি মিলল না উত্তরপ্রদেশ, গুজরাতে, বাতিল হল তৃণমূলের সমস্ত কর্মসূচি

যে ‘খেলা হবে’ স্লোগান নিয়ে একুশের নির্বাচনে বিজেপির বিরুদ্ধে ভোট লড়াইয়ে নেমেছিল তৃণমূল, সেই ‘খেলা হবে’-কে দিবস হিসেবে পালন করার সিদ্ধান্ত নেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ১৬ই আগস্ট এই ‘খেলা হবে’ দিবস পালন করা হবে বলে ঘোষণা করা হয়। শুধু বাংলাই নয়, ত্রিপুরা, উত্তরপ্রদেশ, গুজরাত নানান বিজেপি শাসিত রাজ্যে এই দিবস পালন করার উদ্যোগ নেয় ঘাসফুল শিবির।

সেই অনুযায়ী, আজ, ১৬ই আগস্ট সকাল থেকেই বংলার নানান জায়গায় এই খেলা হবে দিবস উপলক্ষ্যে নানান কর্মসূচি নেওয়া শুরু হয়ে গিয়েছে। ত্রিপুরাতেও বল পায়ে তৃণমূল সাংসদরা মাঠে নেমে পড়েছেন। কিন্তু ভিন্ন চিত্র দেখা গেল উত্তরপ্রদেশ ও গুজরাতে।

আরও পড়ুন- গান্ধী মূর্তির পাদদেশে বিজেপি কর্মসূচিতে বাধা পুলিশের, গ্রেফতার শুভেন্দু, দিলীপ

যোগী রাজ্য ও গুজরাতে এই খেলা হবে দিবস পালনের কোনও অনুমতি মিলল না। এই দুই রাজ্যের ময়দানে জাতীয় স্তরের ফুটবলারদের নামানোর প্রস্তুতি নেয় তৃণমূল। কিন্তু এর অনুমতিই মিলল না।

গোধরার এক স্কুল মাঠে খেলা হবে দিবস পালনের কথা ছিল, কিন্তু সেখানে এই অনুষ্ঠানের অনুমতি দেওয়া হয়নি। অন্যদিকে, উত্তরপ্রদেশের লখনউয়ের একটি মাঠেও এই খেলা হবে দিবস পালনের তোড়জোড় নেওয়া হয়, কিন্তু সেখানেও এই অনুষ্ঠানের অনুমতি দিল না সে রাজ্যের সরকার।

এই প্রসঙ্গে উত্তরপ্রদেশের তৃণমূল নেতা নীরজ রাই জানিয়েছেন, “শুধু খেলা হবে দিবসই না, এর আগেও বহু অনুষ্ঠানের অনুমতি দেয়নি যোগী সরকার। আমরা পেট্রল-ডিজেলের মূলয়বৃদ্ধির বিরুদ্ধে রাস্তায় নেমেছিলাম, তখনও আমাদের আটকে দেওয়া হয়েছিল”।

আরও পড়ুন- তৃণমূলের ‘খেলা হবে’ দিবসের সূচনা করলেন দিলীপ ঘোষ, ইকো পার্কে ফুটবল খেলায় মাতলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি

তাঁর কথায়, “মোদী-যোগী দুজনেই মুখে স্বামী বিবেকানন্দর কথা বলেন, আর আমরা যখন দেশের যুব সমাজকে এগিয়ে নিয়ে যেতে ফুটবল খেলার আয়োজন করেছি, তখন আমাদের আয়োজন চক্রান্ত করে বন্ধ করে দেওয়া হল। এই ঘটনায় প্রমাণ করে যে, বিজেপি আর আরএসএস শুধু মুখেই হিন্দুত্বের কথা বলে, ওটা হিন্দুত্বে বিশ্বাসী নয়”।

You might also like
Comments
Loading...