দেশ

রাজনৈতিক সংকটের জের! আজই ইস্তফা দিতে পারেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে, মিলল ইঙ্গিত

মহারাষ্ট্রের রাজনীতি এখন উত্তাল। বেশ সংকটের মুখে মহা বিকাশ আগাড়ি। ভাঙতে পারে শিব সেনা। ইতিমধ্যেই বিদ্রোহ ঘোষণা করেছেন সে রাজ্যের নগরোয়ন্ন মন্ত্রী তথা শিবসেনা নেতা একনাথ শিন্ডে। নিজের বেশ কিছু অনুগামী বিধায়কদের নিয়ে বেপাত্তা হয়ে যান তিনি।

এই আবহে এদিকে আজ, বুধবার দুপুর ১টার সময় আবার একটি বৈঠকের ডাক দিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। এই বৈঠকে রাজ্যের মন্ত্রিসভার সমস্ত সদস্যকে উপস্থিত থাকতে বলা হয়েছে। বর্তমান পরিস্থিতি নিয়ে আলোচনা করতেই যে এই বৈঠক, তা তো বলাই বাহুল্য।

সূত্রের খবর, আজ, বুধবারই ইস্তফা দিতে পারেন মহারাষ্ট্রের মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। রাজ্যে যে রাজনৈতিক সংকট চলছে, এমন সময়ে এমনই ইঙ্গিত দিলেন শিবসেনা নেতা সঞ্জয় রাউত। তিনি টুইটে লেখেন, “মহারাষ্ট্রের রাজনৈতিক পরিস্থিতি বিধানসভা ভাঙার দিকে এগোচ্ছে”।

অন্য দিকে, শিবসেনা সরকারে তাদের জোটসঙ্গী এনসিপি-ও সরকার বাঁচাতে উদ্যোগ নিয়েছে। বৈঠকে বসছেন এনসিপি প্রধান শরদ পওয়ার। অপর জোটসঙ্গী কংগ্রেস বলছে, তাদের বিধায়করা ঠিক আছেন। শিবসেনা নিজেদের বিধায়কদের সামলে নিক।

বলে রাখি, শিবসেনার বিদ্রোহী নেতা একনাথ শিন্ডে গতকালই তাঁর অনুগামী কিছু বিধায়কদের নিয়ে সুরাটের এক হোটেলে উঠেছিলেন। এবার সেখান থেকে তারা গেলে অসমের গুয়াহাটিতে। বিমানবন্দরে তাদের স্বাগত জানান বিজেপি নেতারা।

এদিন গুয়াহাটি পৌঁছে শিন্ডে বলেন, “আমরা বালাসাহেব ঠাকরের শিব সেনা ত্যাগ করিনি। করবও না। সব মিলিয়ে ৪০ জন শিব সেনা বিধায়ক রয়েছেন এখানে। আমরা বালাসাহেবের হিন্দুত্বের পথ অনুসরণ করে সেটাকেই এগিয়ে নিয়ে যাব”। কিন্তু এবার প্রশ্ন উঠেছে যে তাহলে কেন মহারাষ্ট্র ছেড়ে বিজেপি শাসিত রাজ্য অসমে কেন গেলেন তারা?  এই প্রসঙ্গে শিণ্ডের দাবী, এটা নেহাতই বেড়াতে আসা, আর অন্য কিচ্ছু নয়। পরবর্তীতে মহারাষ্ট্রের রাজনীতি কোন দিকে এগোয়, এখন সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button