সব খবর সবার আগে।

আগামী মাসের শুরুতেই চালু আনলক ৪। লোকাল ট্রেন, মেট্রো রেল পরিষেবা চালু করার চিন্তাভাবনা স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের।

পয়লা সেপ্টেম্বর থেকেই দেশজুড়ে শুরু হবে আনলক ৪। যথেষ্ট‌ই টান পড়ছে দেশীয় আর্থিক ভাঁড়ারে। আর তাই এই সময়ে দাঁড়িয়ে আর্থিক কার্যকলাপে গতি আনা এবং কর্মসংস্থানের সুযোগ বাড়ানোই লক্ষ্য কেন্দ্রের। তাই এবার লোকাল ট্রেন, মেট্রো রেল পরিষেবা ফের চালু করার চিন্তায় রয়েছে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

আনলক ৪ থেকে মেট্রো পরিষেবা চালুর অনুমতি হয়ত মিলবে কেন্দ্রের তরফে। এই বিষয়ে শীঘ্রই নির্দেশিকা জারি করা হবে বলে জানিয়েছেন আধিকারিকরা। করোনা সংক্রমণের জেরে গত ২৩ মার্চ থেকে বন্ধ হয়ে গিয়েছিল কলকাতা মেট্রোর পরিষেবা। মার্চের শেষভাগ থেকেই দেশের অন্যান্য প্রান্তেও মেট্রো চলাচল স্তব্ধ হয়ে গিয়েছিল। ১লা জুন থেকে আনলক পর্যায় চালু করা হলেও অনুমতি দেওয়া হয়নি মেট্রো পরিষেবাকে।

তারইমধ্যে জুনের শেষ লগ্নে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব অজয় ভাল্লাকে চিঠি লিখে মেট্রো পরিষেবা সচল করার আর্জি জানিয়েছিলেন বাংলার মুখ্যসচিব। সেই আর্জিতে সাড়া দিয়ে শুধুমাত্র জরুরি পরিষেবার সঙ্গে যুক্ত কর্মীদের জন্য‌ই কলকাতা মেট্রো সচল হয়েছিল। কিন্তু সংক্রমণ বাড়ায় কয়েকদিন পর সেই পরিষেবা ফের বন্ধ করে দেওয়া হয়।

তারপর অবশ্য লকডাউন সংক্রান্ত অধিকাংশ বিধিনিষেধ উঠে গিয়েছে। অফিসযাত্রীর সংখ্যাও বাড়ছে। সেই পরিস্থিতিতে দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল ধাপে ধাপে মেট্রো পরিষেবা শুরুর আর্জি জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় সরকারের কাছে। এরপরেই দেশের বিভিন্ন শহরে মেট্রো সার্ভিস চালু করা হবে কিনা তা নিয়ে জল্পনা শুরু হয়েছে। তবে এখন‌ও এই বিষয়ে আপত্তি রয়েছে বেশ কয়েকটি রাজ্যের। যদিও সূত্রের খবর মেট্রো সার্ভিস চালু করার অনুমতি দিতে পারে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রক।

যদিও এখনও পর্যন্ত লোকাল ট্রেন ও মেট্রো রেল চালু করার বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি কেন্দ্রের তরফে। বৈঠকে দ্রুত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।  সূত্রের খবর, মেট্রো পরিষেবার জন্য় আলাদা সুরক্ষাবিধি তৈরি করা হবে। যেখানে উল্লেখ করা থাকবে, কতজন যাত্রী উঠতে পারবেন, দূরত্ববিধি কীভাবে বজায় রাখা হবে, স্যানিটাইজেশন কীভাবে করা হবে। তবে স্কুল ও কলেজ এখনই খোলার সম্ভাবনা নেই বলে জানা গিয়েছে। সূত্র খবর, স্কুল-কলেজ খোলার পক্ষে সায় নেই রাজ্য়গুলোর। সেকারণে স্কুল-কলেজে নিষেধাজ্ঞা বহালই থাকবে।

আন্তর্জাতিক উড়ান সংক্রান্ত বিধিতেও এখনই কোনও পরিবর্তন হওয়ার সম্ভাবনা কম। বন্দে ভারত মিশনে বিদেশে আটকে থাকা ভারতীয়দের দেশে ফেরানোর প্রক্রিয়া অবশ্য চলবে।  তবে খুলতে পারে সিঙ্গল থিয়েটার সিনেমা হল, অডিটোরিয়াম । ৫০ শতাংশ আসনের টিকিট বিক্রির অনুমতি দেওয়া হতে পারে। সেক্ষেত্রে মানতে হবে স্বাস্থ্যবিধি, বাধ্যতামূল মাস্ক। তবে এই বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত ছাড়া হবে রাজ্যের উপর।ব্যাঙ্কোয়েট বা সিঙ্গল থিয়েটার সিনেমা হল খোলা হলেও, বিনোদন পার্ক, মাল্টি-স্ক্রিন সিনেমা হল খোলার সম্ভাবনা এই মুহূর্তে নেই।

You might also like
Comments
Loading...