দেশ

যোগী আদিত্যানাথ ও বিজেপিকে সমর্থন করার খেসারত, স্ত্রীকে তিন তালাক দিলেন স্বামী, পুলিশের দ্বারস্থ মহিলা

বিজেপি ও উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথকে সমর্থন করার খেসারত দিতে হল মহিলাকে। তিন তালাক দিলেন তাঁর স্বামী। এই ঘটনায় পুলিশের দ্বারস্থ হন মহিলা। জানা গিয়েছে, প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী ও যোগী আদিত্যনাথকে সমর্থন করায় তাঁর স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন নির্যাতন করে তাঁকে। উত্তরপ্রদেশ পুলিশ গ্রেফতার করেছে অভিযুক্ত স্বামীকে।

ঘটনাটি ঘটেছে উত্তরপ্রদেশের মোরাদাবাদে। সূত্রের খবর, গত ৩রা মার্চ নির্যাতিতা মহিলা অভিযোগ দায়ের করেন তাঁর স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে। মহিলার অভিযোগ, তাঁর স্বামী তাঁকে তিন তালাক দিয়েছেন। তাঁকে শ্বশুরবাড়ি থেকে বেরিয়ে যেতে বলেছেন। বিবাহবিচ্ছেদের আইনি নোটিশ পাঠিয়েছেন মহিলাকে।

কিন্তু কেন এমন করলেন তাঁর স্বামী? মহিলার বক্তব্য, তিনি বিজেপি ও যোগী আদিত্যনাথকে সমর্থন করেন। আর কারণেই বিয়ের কিছুদিন পর থেকেই তাঁর স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজন তাঁকে হেনস্থা করা শুরু করে। মহিলা জানান যে তাঁর ননদ তাঁকে বারবার হুমকি দিতে থাকতেন যে তিনি তাঁর ভাইয়ের সঙ্গে তাঁর বিবাহবিচ্ছেদ করিয়ে দেবেন। এমনকি, সবসময় তাঁকে নানান বিদ্রুপও করতেন বলে অভিযোগ জানান নির্যাতিতা মহিলা।

জানা গিয়েছে, ২০১৯ সালে ৭ই ডিসেম্বর বিয়ে হয় ওই মহিলা ও তাঁর স্বামী নাদিমের। কিন্তু বিয়ের কিছুদিনের মধ্যেই স্বামীর মধ্যে পরিবর্তন দেখতে পান তিনি। মহিলা অভিযোগ করেছেন যে তাঁকে তাঁর স্বামী ও ননদ অকথ্য অত্যাচার করত। আর শেষমেশ তাঁর স্বামী তাঁকে তিন তালাক দক্সেন ও বিবাহবিচ্ছেদের আইনি নোটিশ পাঠান।

এরপরই পুলিশের দ্বারস্থ হন মহিলাক। দিল্লির এক হিন্দু সংগঠনের সভাপতি মোরাদাবাদের পুলিশের কাছে আবেদন রাখেন যাতে টুইটারের মাধ্যমে এই ঘটনাটি যোগী আদিত্যনাথের দৃষ্টিগোচর করা হয়। মহিলার অভিযোগ, তিনি যোগীজির সমর্থক বলেই তাঁর স্বামী তাঁকে তিন তালাক দিয়েছেন।

পুলিশ সুপার অখিলেশ ভাদোরিয়া জানান যে মহিলার স্বামী ও শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বিরুদ্ধে আইপিসি-র ৩৭৬ ও ৫১১ ধারায় অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তিনি এও জানান যে ওই মহিলকার স্বামী নাদিমকে গ্রেফতার করা হয়েছে ও জেলে পাঠানো হ্যেচজে। এই বিষয়ে তদন্ত চালাচ্ছে পুলিশ।

Related Articles

Back to top button