দেশ

অপরাধ দমনে বড় সাফল্য পেল যোগী সরকার, গত ৫ বছরে চার হাজারেরও বেশি অপরাধীকে এনকাউন্টার উত্তরপ্রদেশের পুলিশের

অপরাধের ক্ষেত্রে জিরো টলারেন্স নীতি নিয়ে চলে উত্তরপ্রদেশ সরকার ও পুলিশ প্রশাসন। ২০১৭ সালে যোগী আদিত্যনাথ ক্ষমতায় আসার পর ৫ বছর কেটে গিয়েছে। উত্তরপ্রদেশে অপরাধের সঙ্গে যুক্তদের শাস্তি দেওয়ার জন্য পুলিশের ভূয়সী প্রশংসা করল উত্তরপ্রদেশ সরকার। রাজ্যে এনকাউন্টারের সংখ্যা বেড়েছে।  

রেকর্ড অনুযায়ী, অপরাধে লাগাম টেনে বিগত ২০ মার্চ ২০১৭ থেকে ২০ নভেম্বর ২০২২ পর্যন্ত গ্রেফতার হয়েছে মোট ২২ হাজার ২৩৪ জন অপরাধী। তাদের মধ্যে ৪৫৫৭ জনকে এনকাউন্টার করেছে পুলিশ। সম্প্রতি, ১৬৮ জন অপরাধীকে গুলি করে হত্যা করেছে পুলিশ প্রশাসন। তাদের প্রত্যেকের মাথার পিছু দাম ধরা ছিল ৭৫ হাজার টাকা। এই সমস্ত ঘটনার পরিপ্রেক্ষিতে উত্তরপ্রদেশ পুলিশের ভূমিকা নিয়ে বেশ খুশি যোগী সরকার।

জানা গিয়েছে, সে রাজ্যের পুলিশ প্রশাসনের এনকাউন্টার নীতির কারণে প্রায় ১২ হাজার দুষ্কৃতী জেল থেকে জামিন নিতে অস্বীকার করেছে। কেউ কেউ আবার প্রাণ বাঁচানোর জন্য আদালতে গিয়ে আত্মসমর্পণ করেছে।

উত্তরপ্রদেশের এডিজি প্রশান্ত কুমার জানিয়েছেন যে সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ মেনেই সে রাজ্যের পুলিশ প্রশাসন এনকাউন্টারের কাজ করে। তিনি আরও বলেন যে এই সমস্ত এনকাউন্টারের সময় ১৩ জন পুলিশের সদস্য নিহত হয়েছেন। আহত হয়েছেন ১,৩৭৫ পুলিশ সদস্য।

এর আগে মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ বলেছিলেন, “যদি কেউ অপরাধ করে, তাহলে গুলি করে দেওয়া হবে”। তবে যোগীরাজ্যে এই বাড়তে থাকা এনকাউন্টার প্রসঙ্গে সরব হয়েছে বিরোধী শিবির। কিন্তু সেসব দিকে কোনও আমল না দিয়েও নিজের লক্ষ্যে অনড় যোগী সরকার ও প্রশাসন। এরই পুরস্কার স্বরূপ সাফল্য পেল যোগী প্রশাসনের এনকাউন্টার পরিষেবা।

Related Articles

Back to top button