প্রযুক্তি

ভারত সরকারের সিদ্ধান্তকে চ্যালেঞ্জ করতে চায় না টিকটক, জানাল সংস্থা

গালওয়ান উপত্যকায় চীনের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে সোমবার যোগ্য জবাব দিয়েছিল ভারত। ভারতের বাজারে চীনের তৈরি টিকটক সহ আরো ৫৯টি অ্যাপ ব্যান করে দিয়েছে কেন্দ্রীয় সরকার। এটিকে চীনের বিরুদ্ধে ‘ডিজিটিল সার্জিকাল স্ট্রাইক’ বলে অভিহিত করেন তথ্য প্রযুক্তি মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ। তবে ভারতের এই নির্দেশের বিরুদ্ধে আদালতে যাওয়ার কথা ভাবছে না টিকটক কতৃপক্ষ।

বৃহস্পতিবার সংস্থার তরফে বলা হয়েছে যে কিছু রিপোর্টে জানানো হয়েছে টিকটক ভারত সরকারের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আদালতে দ্বারস্থ হবে। কিন্তু এগুলির কোনো সত্যতা নেই। টিকটকের মুখপাত্র বলেন যে, তেমন কোনও পরিকল্পনা তাদের নেই।

ভারত সরকার অভিযোগ এনেছিলেন টিকটক সহ ৫৯টি চীনের অ্যাপ ভারত ও ভারতবাসীর নিরাপত্তা বিঘ্নিত করছে। তবে টিকটক বন্ধ করার পরই ভারত সরকারের সঙ্গে যোগাযোগ করেছিলেন ওই সংস্থা। এখনো তারা ভারতের সাথে মিলে সমস্যাগুলি সমাধান করতে ইচ্ছুক। এদিন যদিও টিকটকের মুখপাত্র বলেন যে তারা যাবতীয় সরকারি আইন কানুন মেনেই কাজ করেন। এছাড়া ইউজারদের প্রাইভেসি, নিরাপত্তা ও তথ্যের সার্বভৌমত্ব রক্ষা করাই তাদের প্রধান উদ্দেশ্য বলেও তিনি দাবি করেন।

এর আগে মঙ্গলবার টিকটক ইন্ডিয়ার প্রধান নিখিল গান্ধী বলেছিলেন যে তাদের সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারদের তরফে আত্মপক্ষ সমর্থন করা ও যাবতীয় অভিযোগের জবাব দেওয়ার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে। সেদিন টিকটকের তরফে বলা হয়েছিল এই নিষেধাজ্ঞা সাময়িক সময়ের জন্য, এটি চূড়ান্ত নয়। তারা ভারতের সাথে আবারও কাজ করতে চায়। আজ দুই দিন পরেও টিকটক-এর একই বক্তব্য তারা ভারতের সাথে যৌথভাবে কাজ করতে চায়। অর্থাৎ তারা নিজেদের অবস্থান একটুও বদলায়নি।

প্রসঙ্গত, গুগল প্লে স্টোর বা অ্যাপেল অ্যাপ স্টোরে পাওয়া যাচ্ছে না টিকটক। যাদের আগে অ্যাকাউন্ট ছিল, তারাও ব্যবহার করতে পারছেন না এই অ্যাপটি।

debangon chakraborty

Related Articles

Back to top button