সব খবর সবার আগে।

‘আপনার ওএসডি-রা আগে কোথায় ছিলেন? কী করতেন?’, রাজ্যপালের ট্যুইটের পর পাল্টা প্রশ্ন মহুয়ার! 

রাজ্যপাল-মহুয়া মৈত্র বিতর্ক যেন‌ও শেষ হ‌ওয়ার নয়! গতকালই বঙ্গ রাজনীতিতে আলোড়ন ফেলে রাজ্যপালকে কটাক্ষ করে টুইট করেছিলেন কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়া মৈত্র।

গতকালই টুইটে মহুয়া লেখেন, ‘আঙ্কেল জি আপনি গেলে তবেই পশ্চিমবঙ্গের উদ্বেগজনক পরিস্থিতির উন্নতি হবে।’

সাংসদ মহুয়ার অভিযোগ ছিল রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড় নাকি তাঁর পরিবারের সদস্য এবং নিকট আত্মীয়দের ওএসডি–সহ নানা পদে রাজভবনে বসিয়েছেন। তিনি অভিযোগ করে জানিয়েছেন রাজ্যপাল এখানে এসে সংসার পেতে ফেলেছেন। গতকাল মহুয়ার সেই অভিযোগেরই জবাব ফেরান রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।

মহুয়া মৈত্রকে নিজের জবাব ফিরিয়ে জগদীপ ধনখড়  লেখেন, ‘সম্পূর্ণ ভুল তথ্য দিচ্ছেন মহুয়া মৈত্র। অফিসার অন স্পেশাল ডিউটির পদে নিয়োগ নিয়ে মহুয়া মৈত্র যে তথ্য দিচ্ছেন, তা সম্পূর্ণ সঠিক নয়। যে ৬ জনের দিকে আঙুল তোলা হচ্ছে, তাঁদের সম্পর্ক নিয়ে যে তথ্য দেওয়া হচ্ছে, তা নাকি সর্বৈব মিথ্যা। তাঁদের কেউই একই পরিবারের সদস্য কিংবা ঘনিষ্ঠ আত্মীয় নন। এমনকী আমার জনজাতিরও কেউ নন।’

আরও পড়ুন– ফাঁস বিজেপির অন্দরের অডিও ক্লিপ! দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে বড়সড় ষড়যন্ত্র

এই জবাবের পর টুইট–যুদ্ধ কিন্তু থামেনি। ‌ বরং তা আরও বৃহত্তর আকার পেল। এবার রাজ্যপালকে প্রশ্ন করে তিনি লিখলেন, ‘আপনার ওএসডি–রা আগে কোথায় ছিলেন? কী করতেন?’‌ এই প্রশ্নে রাজ্যপালের আরও বিড়ম্বনা বেড়েছে বলে মনে করা হচ্ছে। কারণ সকালেই তিনি টুইটে জানিয়েছেন, মহুয়া মৈত্র সম্পূর্ণ মিথ্যে কথা বলছেন। এঁরা কেউ আমার পরিবারের সদস্য বা আত্মীয় নন।

তবে চুপ করে বসে থাকার মেয়ে নন মহুয়া। টুইটে তিনি লেখেন, ‘আপনার ওএসডি–রা আগে কী করতেন? কী করে তাঁরা রাজভবনে ঢুকলেন? বিজেপির আইটি সেল আপনাকে রক্ষা করতে পারবে না। এমনকী দেশের উপ-রাষ্ট্রপতি‌ও হতে পারছেন না আপনি।’‌

বিশেষজ্ঞ মহল বলছে তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদের এই দাপুটে টুইটে খানিকটা বেকায়দায় তো পড়েছেনই রাজ্যপাল। এখন‌ও পর্যন্ত মহুয়ার দ্বিতীয় টুইটের জবাব ফেরাননি তিনি।

মহুয়ার প্রথম টুইটের জবাব দিতে গিয়ে রাজ্যপাল দাবি করেন, এই ওএসডি–রা তিনজনই আলাদা রাজ্যের বাসিন্দা। ৬ জন ওএসডি একই পরিবারের নন। তাঁদের চারজন তাঁর নিজের জেলার কিংবা জনজাতিরও নন।

কৃষ্ণনগরের সাংসদ মহুয়ার টুইট ছিল, ‘‌রাজভবনের গুরুত্বপূর্ণ পদে নিজের আত্মীয়স্বজন এবং পরিবারের সদস্যদেরই নিয়োগ করেছেন রাজ্যপাল জগদীপ ধনখড়।’

আরও পড়ুন- এবার এফআইআর দায়ের শুভেন্দু অধিকারীর বিরুদ্ধে! গ্রেফতার হতে চলেছেন কী বিজেপি বিধায়ক?

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, জগদীপ ধনখড়কে অভিযুক্ত প্রমাণিত করে তৃণমূল কংগ্রেস সাংসদ মহুয়া মৈত্র’র পোস্ট করা তালিকা অনুযায়ী, রাজ্যপালের অফিসার অন স্পেশাল ডিউটি (ওএসডি) পদে রয়েছেন অভ্যুদয় সিং শেখাওয়াত। যিনি রাজ্যপালের জামাইবাবুর ছেলে। আবার ওএসডি কো–অর্ডিনেশন পদে রয়েছেন অখিল চৌধুরী। যিনি রাজ্যপালের পরিবার ঘনিষ্ঠ। ওএসডি অ্যাডমিনিস্ট্রেশন পদের দায়িত্বে থাকা রুচি দুবেও রাজ্যপালের প্রাক্তন এডিসি মেজর গৌরাঙ্গ দীক্ষিতের স্ত্রী। এমনকী ওএসডি প্রোটোকলের দায়িত্বে থাকা প্রশান্ত দীক্ষিত মেজর গৌরাঙ্গের ভাই।

এবারের বিষয়েই বিস্তারিত জানতে চেয়েছেন মহুয়া! জবাব কী দেবেন ধনখড়?

You might also like
Comments
Loading...