সব খবর সবার আগে।

শো’কজ-এর জবাব দেওয়া সত্ত্বেও অনুপম হাজরার বাড়িতে টাঙানো হল পুলিশি নোটিশ, প্রতিহিংসার রাজনীতি বলছেন নেতা

ভোটের মুখে একের পর এক আইনি জটিলতায় জড়াচ্ছেন শাসক-বিরোধী দুই দলের নেতারাই।কয়লা কান্ডে যখন প্রশ্নের মুখে পড়েছেন অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় স্ত্রী রুজিরা নারুলা তখনই অন্যদিকে কোকেন কাণ্ডে নাম জড়িয়েছে বিজেপি নেত্রী পামেলা গোস্বামী’র।

আর এবার আইনি জটিলতায় পড়লেন বিজেপি নেতা অনুপম হাজরাও। গেরুয়া শিবিরের এই নেতাকে নোটিশ পাঠালো কলকাতা পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ।

প্রসঙ্গত, কোকেন-কাণ্ডে ইতিমধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে এক বিজেপি নেত্রীকে। সেই ঘটনার রেশ ধরে গ্রেফতার করা হয়েছে রাকেশ সিংকে। ঘটনায় রাজনৈতিক প্রতিহিংসার অভিযোগ বিজেপির। এই ঘটনার রেশ কাটতে না কাটতে এবার বিজেপি সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অনুপমকে আইনি নোটিশ ধরাল কলকাতা পুলিশ।

প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী খবর, কলকাতা পুলিশের সাইবার ক্রাইম বিভাগ এই শোকজ নোটিস দিয়েছে। রাজ্যের শিশুসুরক্ষা কমিশনের অভিযোগের ভিত্তিতে এই নোটিশ দেওয়া হয়েছে বিজেপি নেতাকে। অনুপম সেই শোকজের চিঠি দিয়ে ফেসবুকে পোস্ট করেছেন। সেখানে তিনি জানিয়েছেন, গত ১৬ তারিখ তাঁর শান্তিনিকেতনের বাড়ির দেওয়ালে এই নোটিস সাঁটিয়ে দেওয়া হয়। যদিও ঠিক সময় যাতে উত্তর না দিতে পারেন সেই কারনেই এই ষড়যন্ত্র বলে দাবি অনুপমের। এমনকি ঘটনাকে রাজনৈতিক প্রতিহিংসা বলেই ব্যাখ্যা করছেন বিজেপি নেতা। ফেসবুক পোস্টে তাঁর মত, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের পরিবার সিবিআই জিজ্ঞাসাবাদ নিয়ে মুখ খোলাতেই তাঁকে এমন নোটিশ ধরানো হল বলে দাবি অনুপমের।

এই ঘটনা রাজনৈতিক প্রতিহিংসা বলছেন বিজেপি নেতা অনুপম। নীচের সোশ্যাল মিডিয়া হ্যান্ডেলে তিনি লিখেছেন, ‘শোকজ-এর রিপ্লাই দেওয়া সত্ত্বেও, বাড়ির দেওয়ালে চিপকে দেওয়া হলো পুলিশি নোটিশ। বর্তমান বাসস্থানের ঠিকানায় নোটিশ না পাঠিয়ে বাবা-মার ঠিকানায় নোটিশ, যাতে নির্ধারিত সময়ে জবাব না দিতে পারি এবং রাজ্য সরকার নিজের সুবিধামতো স্বেচ্ছাচারিতায় রাজনৈতিক প্রতিহিংসা স্বরূপ পদক্ষেপ নিতে পারে’।

আরও পড়ুন-লক্ষ্মী বারে ‘লক্ষ্য সোনার বাংলা’! ৬০ বছরের ঊর্ধ্বে সবাই পাবেন বিনামূল্যে টিকা, ঘোষণায় নাড্ডা

প্রসঙ্গত, চলতি মাসেই জোড়াবাগানে এক নাবালিকাকে ধর্ষণ, খুনের ঘটনা নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে পরিস্থিতি। অভিযোগ, ওই নাবালিকার নাম প্রকাশ করে, তার পরিবারকে সঙ্গে নিয়ে রাজভবনে গিয়ে দেখা করেন অনুপম হাজরা। সেই ছবি তিনি তাঁর সোশ্যাল মিডিয়াতে দেন। লেখেন অনেক কিছু। আর সেই কারনে এই জিজ্ঞাসাবাদ করতে অনুপমকে এই নোটিশ বলে জানা গিয়েছে। যদিও অনুপম হাজরা জানিয়েছেন, যে নাম ব্যবহার করা হয়েছিল তা অবশ্যই পরিবর্তিত। আসল নাম সামনে আনা হয়নি বলেই দাবি তাঁর। যদিও অনুপমের বিরুদ্ধে পকসো আইন অমান্য করার অভিযোগ ওঠে। ঘটনায় হস্তক্ষেপ করে অনুপম হাজরার বিরুদ্ধে কলকাতা সাইবার ক্রাইম বিভাগের দ্বারস্থ হয় শিশু সুরক্ষা কমিশন। নোটিস পাঠানো হয় বিজেপি সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদককে। এই বিষয়ে বিজেপি নেতার জবাব চাওয়া হয়েছে। আর সেই জবাবে সন্তুষ্ঠ না হলে তাঁকে ডাকা হবে বলে খবর।

You might also like
Comments
Loading...