সব খবর সবার আগে।

সংসদে মিথ্যে পরিচয় দিয়েছেন সাংসদ নুসরত জাহান, বিজেপির তরফে নেওয়া হতে পারে আইনি পদক্ষেপ

“আমি নুসরত জাহান রুহি জৈন”, সংসদে শপথ গ্রহণ করার সময় এই ভাবেই নিজের পরিচয় দেন নুসরত। গত সপ্তাহে তাঁর মা হওয়ার খবর প্রকাশ্যে আসতেই হইচই পড়ে যায় সোশ্যাল মিডিয়ায়। স্বামী নিখিল জৈন বলেন যে তিনি এই সন্তানের বাবা নন। প্রথমে চুপ থাকলেও গতকাল, বুধবার নুসরত একটি বিবৃতি দিয়ে জানান তুরস্কের বিয়ের আইন অনুসারে তাদের বিয়ে অবৈধ। তার উপর হিন্দু-মুসলিম বিয়ে হলে এর জন্য আলাদা কিছু আইন থাকে। তাদের বিয়েতে সেই আইনও মানা হয়নি। ফলত, তাদের বিয়ে আইনত গ্রাহ্যই নয়। নুসরত বলেন, “নিখিলের সঙ্গে আমি লিভ-ইন করেছি, বিয়ে নয়। তাই বিবাহ-বিচ্ছেদের কোনও প্রশ্নই ওঠে না”।

তবে সরকারি তথ্য খতিয়ে দেখলে দেখা যায় যে লোকসভার ওয়েবসাইটে পশ্চিমবঙ্গের সাংসদদের যে তালিকা রয়েছে, সেখানে নুসরতের নামে ক্লিক করলে তাঁর যাবতীয় তথ্যও দেখা যাচ্ছে। আর সেই তথ্য অনুযায়ী, সাংসদ নুসরত জাহান বিবাহিতা। বিয়ের তারিখ ২০১৯ সালের ১৯ জুন ও তাঁর স্বামীর নাম নিখিল জৈন। লোকসভার ওয়েবসাইটে যে পরিচয় রয়েছে, তা সংসদের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতেই দেওয়া রয়েছে।

আরও পড়ুন- রাজীবের পরবর্তী রাজনৈতিক পদক্ষেপ কী হতে চলেছে? তৃণমূল নেতার কথায় ফের ঘনীভূত হল জল্পনা

এরপরই এই বিষয় নিয়ে নানান প্রশ্ন উঠতে থাকে। নুসরত সাংসদে মিথ্যে কথা বলেছেন, এমন কথাও ওঠে। এরপর আজ, বৃহস্পতিবার বিজেপির আইটি সেলের সর্বভারতীয় প্রধান অমিত মালব্য নুসরতের শপথ গ্রহণের সেই ভিডিও-সহ একটি টুইট করেন। বলেন, “তৃণমূল সাংসদ নুসরত জাহান রুহি জৈনের ব্যক্তিগত জীবন, তিনি কাকে বিয়ে করেছেন, কার সঙ্গে লিভ-ইন করছেন সেটা নিয়ে কারও কিছু বলার নেই। কিন্তু তিনি একজন নির্বাচিত জনপ্রতিনিধি এবং সংসদের রেকর্ড অনুযায়ী তিনি নিখিল জৈনকে বিবাহ করেছেন। তবে কি তিনি সংসদে অসত্য ভাষণ দিয়েছিলেন”?

রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞদের মতে, কোনও জনপ্রতিনিধি সংসদে মিথ্যে তথ্য দিলে তাঁর বিরুদ্ধে স্বাধিকার ভঙ্গের আইন আনা যায়। তাহলে এবার বিজেপিও কী সেরকমই কিছু করতে চলেছে? এর জবাবে অমিত মালব্য বলেন, “এখন সংসদ বন্ধ রয়েছে। সংসদ চালু হলে আমি কী করব, সেটা জানাব”। তবে এই বিষয় নিয়ে বিজেপি যে তৃণমূলের উপর চাপ সৃষ্টি করতে চাইছে, তা বেশ স্পষ্ট।

আরও পড়ুন- আগস্টেই বিজেপি রাজ্য সভাপতি পদ খোয়াতে চলেছেন দিলীপ! এরপর কে ধরবে গেরুয়া শিবিরের হাল? জেনে নিন বিস্তারিত

বলে রাখি, লোকসভা নির্বাচনে জয়ের পর পরই সংসদে শপথ গ্রহণ করেননি নুসরত। ২০১৯ সালের ১৯শে জুন তুরস্কে বিয়ে করেন নুসরত ও নিখিল। এই বিয়েতে উপস্থিত ছিলেন তৃণমূলের আরও এক সাংসদ মিমি চক্রবর্তীও। এই কারণে বেশ কিছুটা পরে ২৫শে জুন নুসরত ও মিমি একসঙ্গে লোকসভায় শপথ নেন।

You might also like
Comments
Loading...