রাজ্য

WB Election 2021: ‘মমতাদি ইচ্ছামতো কাউকে মুখ্যমন্ত্রী বানাতে পারেন, কিন্তু বিজেপি বংশ পরম্পরার পার্টি নয়’, অকপটে শাহ

গতকাল, সোমবার ছিল হোলি। পশ্চিমবঙ্গে টানা প্রচার চালিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ কয়েকদিন ধরেই। এই হোলির জন্য দু’দিন দিল্লিতে থাকার সময় পেয়েছেন। এরই মধ্যে এক সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যমের এক প্রতিনিধির সঙ্গে কথা বললেন শাহ।

বিজেপি বারবার বলে এসেছে যে বাংলায় ‘আসল পরিবর্তন’ আসবে। সেই প্রসঙ্গে শাহ বলেন যে ২০১৪ সালের পর থেকে এখনও পর্যন্ত অনেক রাজ্যেই বিজেপি সরকার গড়েছে। অন্যান্য অনেক দল থেকে লোকজন বিজেপিতে এসেছে। শাহ্‌’র কথায়, কিছু মানুষ যাদের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগ রয়েছে, সেই সমস্ত মানুষ বিজেপিতে থাকলেও তারা পরবর্তীকালে বিজেপিতে কোনও দুর্নীতি করতে পারবে না, কারণ তাদের উপর নজরদারি চলবে। শাহ্‌’র কথায়, সেই সমস্ত মানুষ নিজের পুরনো দোলের প্রতি আস্থা হারিয়েছে বলেই বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন, এবার তারা জিতবে না হারবে, মানুষ ঠিক করবে।

শাহ এও বলেন যে মুকুল রায়ের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা চলছে, আদালত ঠিক করবে কে দোষী। বিজেপি যে মামলা প্রত্যাহার করেনি, এও মনে করিয়ে দেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। এও বলেন যে, মুকুল যদি দোষী প্রমাণিত হয়, তাহলে তাঁকে নৈতিক কারণে ইস্তফা দিতেই হবে।

আরও পড়ুন- চলে গেলেন নিমতায় তৃণমূলীদের হাতে আক্রান্ত  বিজেপি কর্মীর বৃদ্ধা ‘মা’! 

মন্ত্রিসভা গঠন নিয়ে শাহ বলেন যে অভিযুক্ত নেতারা মন্ত্রিসভায় থাকবেন কী না, তা যিনি মুখ্যমন্ত্রী হবেন, তিনিই ঠিক করবেন। এরপরই কয়লা পাচারকাণ্ডের প্রসঙ্গ টেনে শাহ বলেন যে কয়লা চুরিতে অভিযুক্ত লালা, তার পক্ষ কেন নিলেন পিসি-ভাইপো? রাজীব কুমারের বাড়িতে তল্লাশি হলে মুখ্যমন্ত্রী কেন ধর্নায় বসেন?

এরপর তাঁকে প্রশ্ন করা হয় যে রাজ্যে চাকরির অভাব রয়েছে, এ বিষয়ে বিজেপি কী ভাবছে? শাহ্‌’র কথায়, ২৫০০ কোটি টাকা পাট শিল্পের পুনরুজ্জীবনের জন্য রাখা হয়েছে। এছাড়াও, বিজেপি সংকল্পপত্র মেনে এক কোটি রোজগার হবে। রাজ্যে জমির অভাব রয়েছে, এ জন্য ‘ল্যান্ড ব্যাঙ্ক’ তৈরি হবে।

বিজেপির তরফে কাউকেই এখনও মুখ্যমন্ত্রী মুখ হিসেবে নির্বাচিত করা হয়নি। তবে এই কারণে মমতার যে কোনও লাভ হবে না, এও পরিষ্কার জানিয়ে দেন অমিত শাহ। তাঁর কথায়, ‘দিদি কাউকে বানাতে পারেন, কাউকে ফেলেও দিতে পারেন, আমাদের বংশ পরম্পরার পার্টি নয়। সংসদীয় বোর্ড বিধায়কদের সঙ্গে আলোচনা করে ঠিক করবে কে মুখ্যমন্ত্রী হবেন”।

আরও পড়ুন- বিজেপি লেখা গেঞ্জি পড়ার জের! সিঁথি থানা এলাকায় মারধর বাবা-মেয়েকে

এদিন ফের জোর গলায় শাহ বলেন যে রাজ্যে বিজেপি ২০০ আসন নিয়ে ক্ষমতায় আসবে। এদিন সিএএ নিয়েও কথা বলেন শাহ। বলেন, এই করোনা পরিস্থিতির মধ্যে নাগরিকত্ব দেওয়া সম্ভব নয়। পেট্রোল-ডিজেল ও রান্নার গ্যাসের দামের বিষয়ে তাঁর জবাব, এটা অস্থায়ী, কিছুদিনের মধ্যেই তা মিটে যাবে। এও বলেন যে সিএএ বা এনআরসি চালু হলে রাজ্যের মুসলিমদের ভয়ের কোনও কারণ নেই। কারণ সিএএ নাগরিকত্ব দেওয়ার আইন, ছিনিয়ে নেওয়ার নয়। তাই মুসলিমদের কোনও ভয় নেই।

Related Articles

Back to top button