সব খবর সবার আগে।

বাংলায় আসছেন অমিত শাহ! ৯ ই জুনের জনসভা থেকে নতুন উদাহরণ তৈরীর লক্ষ্যে উদ্যোগী বিজেপি!

আপাতত জমায়েতের ওপর কোন ছাড় দেয়নি কেন্দ্র! দেশজুড়ে আনলক প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার পরেও সরকারের স্পষ্ট নির্দেশ রয়েছে আপাতত কোনও বড় সমাবেশ তো করাই যাবে না এমনকী শপিং মল থেকে ধর্মীয় স্থল সর্বত্র প্রতিটি মানুষের মধ্যে ছ’ফুট দূরত্ব বজায় রাখতে হবে। প্রধানমন্ত্রী নিজেই ‘দো গজ কি দুরি’ স্লোগান তুলেছেন। এই অবস্থায় বড় প্রশ্ন রাজনৈতিক সমাবেশ কি করে হবে? আর কি কোনও দিন হবেনা ‘ধর্মতলা চলো’ অভিযান?

এই প্রশ্নের উত্তর যখন সবাই খুঁজছে এই পরিস্থিতিতে দাঁড়িয়ে কীভাবে সমাবেশ করা যায় তার উদাহরণ তৈরী করতে চলেছে দেশের শাসক দল বিজেপি। আর সেটা শুরু হচ্ছে এই রাজ্য থেকেই। আগামী ৯ই জুন প্রথম ভার্চুয়াল জনসমাবেশ হবে বাংলায়। তাতে প্রধান হিসেবে বক্তব্য রাখবেন দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ এবং বঙ্গ বিজেপির সভাপতি দিলীপ ঘোষ। এই প্রসঙ্গে দিলীপ ঘোষের দাবি, “করোনা মোকাবিলায় গোটা বিশ্বকে পথ দেখাচ্ছেন আমাদের প্রধানমন্ত্রী। আর এই নতুন সময়ে কীভাবে জনসমাবেশ করা যায় তা দেখাবে আমাদের দল।”

কীভাবে এই সমাবেশ হবে তা বুঝিয়ে বললেন রাজ্য বিজেপির সংগঠন সম্পাদক সুব্রত চট্টোপাধ্যায়। তিনি জানান, ‘ওয়েবেক্স মিট’ অ্যাপের মাধ্যমে হবে এই জনসভা। দিল্লিতে কেন্দ্রীয় অফিসে থাকবে একটি মঞ্চ আর কলকাতায় রাজ্য সদরদফতরে থাকবে একটি মঞ্চ। দুই মঞ্চে থাকবেন দুই বক্তা অমিত শাহ এবং দিলীপ ঘোষ। এই অ্যাপের মাধ্যমে এক সঙ্গে এক হাজার মানুষের সঙ্গে যোগাযোগ করা যায়। রাজ্য বিজেপি ইতিমধ্যেই সেই হাজার জন নেতা কর্মী বেছে ফেলেছে। তাঁরা সরাসরি ওই সভায় যোগ দেবেন। একই সঙ্গে বিজেপির সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার করা হবে সমাবেশ। ফেসবুক, ইউটিউবের মাধ্যমে লক্ষ লক্ষ কর্মী, সমর্থক, সাধারণ মানুষ অংশ নিতে পারবেন এই সমাবেশ।

সুব্রত চট্টোপাধ্যায় বলেন, “বর্তমান সময়ের কথা ভেবেই এই পথ। এটা একটা ঐতিহাসিক সমাবেশ হবে। এটা শুরু। এর পরে এই ভাবেই আরও সমাবেশ হবে।” তিনি আরও জানিয়েছেন, এই সমাবেশে যোগ দেওয়ার জন্য যে এক হাজার জনকে এই পর্যায়ে বাছা হয়েছে তাঁদের কাছে ৯ জুন বেলা ১১টায় সভা শুরুর ১৫ মিনিট আগে পৌঁছে যাবে একটি লিঙ্ক। আর তা ব্যবহার করেই সভায় যোগ দেওয়া যাবে। সরাসরি যোগ দেওয়া এক হাজার জনকে চাইলে দেখতেও পারবেন অমিত শাহ, দিলীপ ঘোষ। ভার্চুয়াল এই জনসভার জন্য প্রচারও হচ্ছে সেই পথে। হোর্ডিং, পোস্টার নয়, সোশ্যাল মিডিয়ার মধ্য দিয়েই সমাবেশে যোগ দেওয়ার আবেদন পাঠাচ্ছে রাজ্য বিজেপি।

রাজ্যে পুরসভা ভোট কবে হবে তা এখনও নিশ্চিত নয়। তা নিয়ে খুব একটা মাথাব্যাথাও নেই রাজ্য বিজেপি নেতাদের। বরং, বছর ঘুরলেই বিধানসভা নির্বাচন। আর তার জন্য এখন থেকেই ঘর গোছানো শুরু করেছে বিজেপি। রাজ্যের কোর কমিটি নতুন করে সাজানো হয়েছে। সেই সঙ্গে ক’দিন আগেই এক সংবাদমাধ্যমকে অমিত শাহ বলেন, “বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের সাধ পূর্ণ হবে। একুশের ভোটে বাংলায় সরকার গড়বে বিজেপি। মিলিয়ে নেবেন।” তবে এই প্রথম নয়, বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি থাকার সময় থেকেই অমিত শাহ বলে আসছেন, “একুশ সালে বাংলায় দুই তৃতীয়াংশ গরিষ্ঠতা নিয়ে সরকার গড়বে বিজেপি।”

এবার সেই লক্ষ্যেই লকডাউনের মধ্যেই ভার্চুয়াল সমাবেশ শুরু করে দিচ্ছে বিজেপি।

You might also like
Leave a Comment