রাজ্য

“দলের আজকে আমার প্রয়োজন ফুরালো!” দিদির প্রার্থী তালিকা দেখে সোশ্যাল মিডিয়ায় হতাশা ভরা পোস্ট আরাবুলের 

আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে জিততে সদ্য তৃণমূলে যোগদানকারী তারকাদের প্রার্থী বানিয়েছেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ‌সেখানেই বাদ পড়েছেন আরাবুল ইসলাম, দেবাংশু ভট্টাচার্যের মত একনিষ্ঠ তৃণমূলীরা।

কেউ ক্ষোভ চেপে রেখেছেন, তো কেউ প্রকাশ্যে ক্ষোভের বহিঃপ্রকাশ করছেন।

যেমন তৃণমূল নেতা আরাবুল ইসলাম। রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী তথা তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পরেই তৃণমূল নেতার হতাশা ভরা ফেসবুক পোস্ট।

আরও পড়ুন–WB Election 2021: চমকে ভরা বিজেপির ব্রিগেড, ৭ই মার্চ বিজেপিতে যোগ দিতে পারেন শতাব্দী রায়!!

বিধানসভা নির্বাচনের আগে যখন দলের একতা বজায় রাখার চেষ্টা করছেন তৃণমূল নেত্রী ও নির্বাচনী কৌশলবিদ প্রশান্ত কিশোর তখন দলের প্রতি ক্ষোভ উজাড় করে দিলেন আরাবুল। তৃণমূল ভবনে প্রার্থী তালিকা প্রকাশের পরেই; নিজের ফেসবুক পোস্টে তিনি লেখেন “দলে আজকে আমার প্রয়োজন ফুরালো”।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, ২০০৬ সাল থেকে ২০১১ সাল পর্যন্ত; তিনি পশ্চিমবঙ্গ বিধানসভায় ভাঙড় বিধানসভা কেন্দ্রের বিধায়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেছেন। এবারে ওই কেন্দ্রে তৃণমূলের টিকিট পেয়েছেন; মহম্মদ রেজাউল করিম। যিনি বিগত বছরে সিপিএম থেকে তৃণমূলে যোগ দিয়েছিলেন। ‌দলের লড়াই করা নেতাকে বাদ দিয়ে; সিপিএম থেকে আসা নেতাকে প্রার্থী করায় হতাশ গোটা ভাঙর তৃণমূল। হতাশ আরাবুল নিজেও।

তবে আরাবুল বিরোধীরা বলছেন; “দিদির সিদ্ধান্তই ফাইনাল। আমরা মেনে নিয়ে; তৃণমূলের হয়ে প্রচার করব”। তবে তাতে তৃণমূলের ক্ষোভ কমছে না।

আরও পড়ুন–বিজেপির জালে মমতা! নন্দীগ্রামে শুভেন্দু, ভবানীপুরে বাবুল, চিন্তার ভাঁজ ঘাসফুলের কপালে 

আরাবুল ইসলামের এই হতাশার পিছনে; অবশ্য অনেক কারণ আছে বলে মনে করছে আরাবুল ভক্তরা। তৃণমূলের প্রতি আরাবুলের সমর্পণ‌ও কিন্তু কম নয়। ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে, এই রাজ্যেও বিজেপি হাওয়ার মধ্যেও; যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্র থেকে, তৃণমূল প্রার্থী মিমি চক্রবর্তীকে জিতিয়ে আনার পিছনে সবচেয়ে বড় ভূমিকা নিয়েছিলেন আরাবুল। সেই যাদবপুর লোকসভা কেন্দ্রের অন্তর্গত একটি বিধানসভা কেন্দ্রে; তাঁকে প্রার্থী করা হবে, এমনটাই আশা করেছিলেন তিনি। সেটা হয়নি, বলা যায় সচেতনভাবেই তাকে পাশ কাটালেন তৃণমূল সুপ্রিমো।

Related Articles

Back to top button