রাজ্য

‘শুভেন্দুর বাড়িতেও ইডির তদন্ত হওয়া উচিত একবার’, কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থার তদন্ত করা নিয়ে বিস্ফোরক বাবুল

একুশের বিধানসভা নির্বাচনের আগে পর্যন্ত বিষয়টা ঠিক উল্টোই ছিল। একজন ছিলেন মমতার (Mamata Banerjee) দীর্ঘপথের সৈনিক আর অন্যজন বিজেপির (BJP) মন্ত্রী। কিন্তু কিছুমাস আগে সমীকরণটা কেমন যেন গেল পুরো পাল্টে। এখনও দু’জন দুই আলাদা দলেরই তবে দু’জনের দল গিয়েছে বদলে। অদলবদল ঘটেছে আর কী! তৃণমূলে বাবুল সুপ্রিয় (Babul Supriyo) আর বিজেপিতে গিয়েছেন শুভেন্দু অধিকারী (Suvendu Adhikari)। এবার ইডির (Enforcement Directorate) তদন্ত নিয়ে রাজ্যের বিরোধী দলনেতার দিকে নানান কটাক্ষ ছুঁড়ে দিলেন তৃণমূলের নয়া মন্ত্রী।

প্রসঙ্গত, গত রবিবার রাজ্য সরকারকে আক্রমণ করে তুলোধোনা করেন শুভেন্দু অধিকারী। বলেন, “বাংলায় তৃণমূল সরকার দুর্নীতিগ্রস্ত। একের পর এক নেতারা ক্রমশ দুর্নীতি করে চলেছে। তবে আমরা যদি বাংলায় ক্ষমতায় আসি, তবে উত্তর প্রদেশে যোগী আদিত্যনাথ এবং অসমে হিমন্ত বিশ্ব শর্মার মতো রাষ্ট্রবিরোধী শক্তিদের বিরুদ্ধে বুলডোজার চালিয়ে দেব। সকল দুর্নীতি বন্ধ হবে”।

এবার শুভেন্দুর এই মন্তব্যের পাল্টা দিলেন বাবুল। গতকাল, সোমবার রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রয়াণ দিবস উপলক্ষ্যে মেদিনীপুরের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দেন বাবুল সুপ্রিয়। সেখানে শুভেন্দুকে উদ্দেশ্য করে পাল্টা প্রশ্ন ছুঁড়ে তিনি বলেন, “শুভেন্দু অধিকারীর বাড়িতে কত টাকা লুকানো রয়েছে, সে প্রসঙ্গে কেন তদন্ত হবে না? ওর বিরুদ্ধেও তদন্ত হওয়া উচিত। বাংলায় এখন সিবিআই এবং ইডি তদন্ত করে চলেছে। ওদের উচিত, শুভেন্দুর বাড়িতে একবার যাওয়া। বিরোধীদের বিরুদ্ধেই বর্তমানে শুধু তদন্ত হচ্ছে। এটা অনুচিত”।

এর পাশাপাশি নিজের প্রাক্তন দল ও কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থাকেও শানাতে কসুর করেন নি বাবুল। ক্ষোভ উগড়ে তিনি বলেন, “বিজেপির অনেক নেতা রয়েছে, যাদের কোনরকম জ্ঞান নেই। তা সত্ত্বেও বিপুল পরিমাণ অর্থ নিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এর বিরুদ্ধে তদন্ত হওয়া উচিত”।

এখানেই শেষ নয়। এদিন বাবুল আরও বলেন, “বর্তমানে রাজ্যে ইডি কেবলমাত্র বিরোধীদের বিরুদ্ধে তদন্ত করে চলেছে। মনে হচ্ছে, বিজেপি যেন ধোয়া তুলসী পাতা। এর ফলে মানুষের বিশ্বাসযোগ্যতা ক্রমশ কমে যাচ্ছে। ওদের উচিত, শুভেন্দু অধিকারীর পাশাপাশি বিজেপি নেতাদের বাড়িতেও তদন্ত করা”।

Related Articles

Back to top button