সব খবর সবার আগে।

‘ভাইপো’ না পসন্দ, তাই খোকাবাবু! অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নতুন নামকরণ করলেন দিলীপ ঘোষ

ফের ‘ভাইপো’ বিতর্ক উস্কোলেন বঙ্গ বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ। ‘খোকাবাবু’ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নতুন নামকরণ করলেন তিনি। সেইসঙ্গে বিদ্রূপাত্মক কণ্ঠে বললেন ‘আদর করে ভাইপো বললে আপত্তি কোথায়। আমি ভাইপো বলি না, বলি খোকাবাবু।’

সোমবার দমদমের হনুমান মন্দিরে পুজো দিতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের নাম না নিয়েই বলেন, ‘ওঁর ভাইপো বলায় আপত্তি? তবে খোকাবাবু বলব।’

উল্লেখ্য, বঙ্গ রাজনীতি থেকে কেন্দ্রীয় রাজনীতি, তৃণমূল নেতা অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের অন্য একটি পরিচয় তাঁর রাজনৈতিক সত্বাকে আড়াল করে দেয়। ভারতীয় রাজনীতিতে তিনি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের ‘ভাইপো’ হিসেবে পরিচিত। রাজনীতির আঙিনায় পা রাখার সঙ্গে সঙ্গেই তাকে এই জন্য বারংবার বেশ বিদ্রূপের মুখেই পড়তে হয়।

তবে এই ‘ভাইপো’ বলার বিরুদ্ধে রবিবারই সুর চড়িয়ে ছিলেন অভিষেক। সম্প্রতি তিনি প্রশ্ন তোলেন কে ভাইপো?  সাতগাছিয়ার সভায় উচ্চকণ্ঠে যুব তৃণমূল সভাপতি বলেছিলেন, ‘সবার‌ই আক্রমণের কেন্দ্রবিন্দু ভাইপো। কিন্তু কেউ নাম নিতে পারে না। বুকের পাটা থাকলে ভাব বাচ্যে কথা বলে না বলে নাম নিয়ে দেখাক। যিনি আমার নাম নিয়ে মিথ্যে কথা বলেছেন, তাঁকে আমি আদালতের রাস্তা দেখিয়েছি। তাই বলছি, দম থাকলে আমার নাম নিয়ে বলুন।

ভোটের রাজনীতির উত্তপ্ত ময়দানে এহেন চ্যালেঞ্জকে ফেরায়নি বাংলার প্রধান বিরোধী দল বিজেপি। অভিষের চ্যালেঞ্জের জবাব দিতে রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষ বলেন, ‘ওঁকে খোকাবাবু বলব না তো কী! কোলে চড়ে রাজনীতিতে এসেছেন, এখনও কোলেই বসে আছেন। যাঁরা দল তৈরি করেছেন তাঁরা এখন ব্রাত্য। উনি কোলে চড়ে সাংসদ হয়ে গেলেন।’

এর পিছনে দিলীপবাবুর যুক্তি দিয়ে বলেন, ‘দিল্লিতে যুবরাজকে পাপ্পু বলা হয়। পাপ্পু বলা হবে। ভাইপো বললে ক্ষতি কি হয়েছে? চিৎকার চেঁচামিচি করে কিছু হবে না। লোক জানেন সব কিছু।’

তবে শুধু নাম বিতর্কই নয়, গতকাল সাতগাছিয়ার সভা থেকে দিলীপ ঘোষকে ‘গুন্ডা’ বলে দাগিয়েছিলেন ডায়মন্ড হারবারের তৃণমূল সাংসদ। সেই প্রসঙ্গে এদিন দিলীপবাবু বলেন, ‘সাধারণ মানুষের জন্য যা করছি তা যদি গুন্ডামি হয় তবে তাই। এই তো সবে শুরু। গুন্ডামি দেখেছেন কি, আরও অনেক দেখতে হবে।’

You might also like
Comments
Loading...