সব খবর সবার আগে।

রাজনৈতিক হিংসার শিকার চন্দননগরের বিজেপি প্রার্থী! গাড়ি থেকে নামিয়ে চললো যথেচ্ছ মারধর

১০ই এপ্রিল রাজ্যে চতুর্থ দফার ভোট গ্রহণ। ‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌ চুঁচুড়া-চন্দননগরের এদিন‌ই ভোটগ্রহণ হবে। আর সেই দিন যত এগিয়ে আসছে উত্তাপ বাড়ছে এলাকাগুলিতে। এবার চন্দনগরে হামলার শিকার হলেন বিজেপি প্রার্থী দীপাঞ্জন গুহ।

তাঁকে একপ্রকার গাড়ি থেকে টেনে নামিয়ে মারধর করা হয়। এই ঘটনায় নাম জড়াল তৃণমূল নেতার। বিজেপি প্রার্থী দীপাঞ্জন গুহর অভিযোগ, ভোটের প্রচার সেরে দলীয় কর্মী–সমর্থকদের সঙ্গে নিয়ে বাড়ি ফেরার পথেই হামলা চালায় স্থানীয় তৃণমূল নেতা ও তার দলবল।

আরও পড়ুন-মানবিক মোদী! প্রধানমন্ত্রীর সভায় আচমকা অসুস্থ মহিলা, বক্তব্য থামিয়ে দিলেন চিকিৎসার নির্দেশ

তিনি অভিযোগ করে জানিয়েছেন চন্দননগরের ছবিঘরের কাছে গাড়ি আটকে আমায় এবং আমার সহকর্মীদের গাড়ি থেকে টেনে নামিয়ে আনে রাস্তায়। অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করতে থাকে এলাকার স্থানীয় তৃণমূল নেতা

শ্যামবুদ্ধ ও তার দলবল। আমাদের বহিরাগত তকমা দিয়ে রাস্তায় ফেলে মারধর শুরু করে। এই ঘটনায় গুরুতর আহত হন বিজেপি প্রার্থী দীপাঞ্জন গুহ ছাড়াও তাঁর ২ সঙ্গী দীনেশ সিং ও বিকাশ অধিকারী।

এরপরই বিজেপি প্রার্থী দীপাঞ্জন গুহ আক্রান্ত হওয়ার খবর পেতেই ঘটনাস্থলে জমায়েত হয় বিজেপি কর্মী-সমর্থকদের। এই ঘটনার তীব্র প্রতিবাদ করে বিজেপি কর্মীরা। অভিযুক্ত তৃণমূল নেতা ও তার দলবলকে গ্রেফতারির দাবিতে চন্দননগর থানায় গিয়ে বিক্ষোভ দেখান বিজেপি কর্মী–সমর্থকরা। বিজেপির তরফে এই ঘটনায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয় তৃণমূলের নেতা–কর্মীদের নামে।

 

চন্দননগরে এবার‌‌ও তৃণমূলের প্রার্থী ইন্দ্রনীল সেন। তিনি হেরে যাবেন বলেই তৃণমূলের গুন্ডারা সন্ত্রাস চালাচ্ছে গোটা এলাকায়। যদিও এই ঘটনায় তৃণমূলের কেউ জড়িত নয় বলেই দাবি করছে স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্ব। তৃণমূল নেতৃত্বের দাবি, বিজেপির কোনও সংগঠন নেই চন্দননগরে। তাই বহিরাগত এনে গোলমাল করছে বিজেপি।
You might also like
Comments
Loading...