রাজ্য

সৌমিত্র খাঁ-পর এবার অমরনাথ শাখা, পঞ্চায়েত নির্বাচনের মুখেই পৃথক রাঢ়বঙ্গের দাবী তুললেন বিজেপি বিধায়ক

এর আগেও বিজেপির (BJP) তরফে এমন দাবী উঠেছে। আর এবার পঞ্চায়েত নির্বাচনে (Panchayet Election) আগে ফের একবার পৃথক রাঢ়বঙ্গের দাবী তুললেন বাঁকুড়ার ওন্দার বিজেপি বিধায়ক অমরনাথ শাখা (Amarnath Shakha)। যদিও কিছুদিন আগেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় (Mamata Banerjee) বলে দিয়েছিলেন, “উত্তর ও দক্ষিণবঙ্গ মিলিয়ে বাংলা’। তবে বিজেপি বিধায়কের এহেন মন্তব্যে বেশ শোরগোল পড়েছে রাজ্য-রাজনীতিতে।

নতুন বছরের শুরুর দিকেই রয়েছে পঞ্চায়েত নির্বাচন। শাসক-বিরোধী সকলেই নেমে পড়েছে ভোটের লড়াইয়ে। জনসংযোগের জন্য নানান জায়গায় চলছে নানান কর্মসূচি। ঠিক তেমনই গতকাল, শনিবার বাঁকুড়ার মুড়াকাটায় জনসংযোগ কর্মসূচি ছিল বিজেপির। সেই কর্মসূচিতে উপস্থিত ছিলেন বিজেপি বিধায়ক অমরনাথ শাখা। মঞ্চে দাঁড়িয়ে পৃথক রাঢ়বঙ্গের দাবীতে সরব হন তিনি।

তাঁর কথায়, তাঁর অভিযোগ রাঢ়বঙ্গ সম্পদে সমৃদ্ধ হলেও সেই সম্পদ সোজা কালীঘাটে চলে যাচ্ছে। দশকের পর দশক ধরে ব রাঢ়বঙ্গের মানুষ বঞ্চিত হচ্ছেন। রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় এলে পৃথক রাজ্য তৈরির ব্যাপারে প্র‍য়োজনীয় পদক্ষেপ করার কথাও জানিয়েছেন বিধায়ক। অমরনাথ শাখা বলেন, “রাঢ় বাংলা বঞ্চনার শিকার। এখানকার মানুষ সব দিক থেকে বঞ্চিত। পানীয় জলের ব্যবস্থা নেই। সমস্ত দিক থেকে বঞ্চিত। সেই কারণে আমরা সকলের বাড়ি-বাড়ি যাচ্ছি”।

এর আগে পৃথক জঙ্গলমহলের দাবী তুলেছিলেন বিষ্ণুপুরের বিজেপি বিধায়ক সৌমিত্র খাঁ। বঞ্চনার অভিযোগ তুলে এমন দাবী করেছিলেন তিনি। এবার অমরনাথ শাখা তেমনই অভিযোগ আনলেন। যদিও এর আগে বিজেপির শীর্ষ নেতৃত্ব বঙ্গভঙ্গের দাবীকে সমর্থন করে নি। তারা বঙ্গভঙ্গ চান না, এমনটাই জানানো হয় শীর্ষ নেতৃত্বের তরফে। আর এবার বিজেপি নেতা রাহুল সিনহা তেমনটাই বলেছেন।

যদিও বিজেপি বিধায়কের এহেন মন্তব্য বিরোধী শিবিরে শোরগোল ফেলেছে। তৃণমূল মুখপাত্র কুণাল ঘোষ বিজেপি বিধায়কের এই দাবিকে ‘যুক্তিহীন পাগলের প্রলাপ’ বলে কটাক্ষ করেছেন। স্থানীয় এক তৃণমূল নেতা এই বিষয়ে বলেন, “এখন বিজেপি বিধায়ক কোনও প্রার্থী খুঁজে পাচ্ছেন না। তাই নিজেই মাঠে নেমে পড়েছেন। এবার মানুষকে তো কিছু বোঝাতে হবে। সেই কারণে নিজেই ভুলভাল দাবী জানাচ্ছেন”।

Related Articles

Back to top button