রাজ্য

‘দিদিরও মনে মনে বঙ্গভঙ্গের ইচ্ছা রয়েছে নাকি’? জল্পনা উস্কালেন বিজেপি বিধায়ক, ছড়াল জোর চাঞ্চল্য

বিজেপির তরফে এর আগেও অনেকবার বঙ্গভঙ্গের প্রসঙ্গ উঠে এসেছে। সম্প্রতি আবার কোচবিহার পিপলস অ্যাসোসিয়েশনের নেতা অনন্ত রায় (Ananta Roy) ওরফে অনন্ত মহারাজ বঙ্গভঙ্গের জল্পনা উস্কে দিয়েছিলেন। তিনি স্পষ্ট জানিয়েছিলেন যে লোকসভা নির্বাচনের আগে রাজ্য পৃথক হবে। এবার সেই মন্তব্যকেই সমর্থন করে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Mamata Banerjee) কটাক্ষ করলেন কার্শিয়াংয়ের বিজেপি বিধায়ক বিষ্ণুপ্রসাদ শর্মা (Bishnuprasad Sharma)।

এই বিষয়ে তিনি বলেন, “অনন্ত মহারাজও পৃথক রাজ্যের কথা বলেছেন। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাঁকে উপহার পাঠিয়েছেন, মুখ্যমন্ত্রীর সঙ্গে তাঁর সুসম্পর্ক রয়েছে, তা সত্ত্বেও তিনি বঙ্গভঙ্গের কথা বলছেন। তার মানে কি আমরা ধরে নেব যে মনে মনে দিদিরও বঙ্গভঙ্গের ইচ্ছা রয়েছে? এমনটা যদি হয়, তবে তা আমাদের জন্য অত্যন্ত ভালো খবর”।

বিজেপি বিধায়কের এহেন মন্তব্যে স্বাভাবিকভাবেই বেশ চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে রাজ্য-রাজনীতিতে। বিষ্ণুপ্রসাদ শর্মার দাবী, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মনেও বঙ্গভঙ্গের ইচ্ছা রয়েছে। আর এই ইচ্ছা তিনি প্রকাশ করেছেন অনন্ত মহারাজের মাধ্যমে। সম্প্রতি, মমতার উত্তরবঙ্গ সফরের সময় মমতার সঙ্গে মঞ্চে দেখা গিয়েছিল অনন্ত মহারাজকে।

আবার কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী নিশীথ প্রামাণিকের সঙ্গে একান্ত বৈঠক হয়। সেই বৈঠকের পর অনন্ত রায় দাবী করেন যে কেন্দ্রের তরফে কেন্দ্র শাসিত অঞ্চল করা নিয়ে সায় রয়েছে। তাঁকে এ নিয়ে প্রচার করতে বলা হয়েছে বলেও দাবি করেন অনন্ত রায়। যদিও, বিজেপির রাজ্য সভাপতি সুকান্ত মজুমদার স্পষ্ট করে দেন, উপর থেকে তাঁদের কাছে এমন কোনও নির্দেশ আসেনি।

এসবের মধ্যেই বিজেপি বিধায়ক বিষ্ণুপ্রসাদ শর্মার মন্তব্যের জেরে বঙ্গভঙ্গের আগুনে ঘি পড়েছে। এর আগে নানান সময় পৃথক রাজ্যের দাবী তুলেছেন তিনি। তাঁর কথায়, বিধায়ক হিসেবে নয়, উত্তরবঙ্গের বাসিন্দা হিসেবে তিনি যে বঞ্চনা দেখেছেন, তার উপর ভিত্তি করেই উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য করার দাবী তুলেছেন তিনি।

এই প্রসঙ্গে তৃণমূলের সহ-সভাপতি জয়প্রকাশ এক সংবাদমাধ্যমে বলেন, “মিথ্যে কথা ও বাজে কথা বলার কোনও প্রয়োজন নেই। বিজেপি শীর্ষ নেতৃত্ব বলছেন কোনওভাবেই কোনও রাজ্যভাগ করা হবে না। খোদ অমিত শাহ এই কথা বলে গিয়েছেন। মমতা সঙ্গে একমাত্র নরেন্দ্র মোদী বা অমিত শাহের তুলনা চলে, এই সব ছোটখাটো চুনোপুঁটি নেতার কথার গুরুত্ব দেওয়ার কোনও প্রয়োজন নেই”।

Related Articles

Back to top button