রাজ্য

মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লাশ চোর! মল্লারপুরে বিস্ফোরক মন্তব্য বিজেপি নেতা সৌমিত্র খাঁর!

শেষমেষ বাংলার মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে (Mamata Bandopadhyay) লাশ চোর বলে হেঁকে বসলেন‌ বিজেপির যুব মোর্চার রাজ্য সভাপতি ও সাংসদ সৌমিত্র খাঁ। নাবালকের মৃত্যুর প্রতিবাদ করে আজ অর্থাৎ শনিবার বীরভূমের মল্লারপুরে ১২ ঘণ্টার ধর্মঘট পালন করল বিজেপি। এদিন সকালের মল্লারপুরে বিজেপির দলীয় কার্যালয় থেকে মিছিল বের হয়। এই মিছিলের নেতৃত্বে ছিলেন সৌমিত্র খাঁ (Saumitra Khan)। ‌বনধের জেরে সকাল থেকেই দোকান-পাট, বাজার-হাট সব‌ই ছিল স্তব্ধ।

তাৎপর্যপূর্ণ ভাবে ভোটের বাজারে নাবালক মৃত্যুর প্রতিবাদে বোলপুরে প্রতিবাদ মিছিল বের করেছিল বামেরাও। প্রসঙ্গত, পুলিশ হেফাজতে নাবালকের মৃত্যুর অভিযোগে উত্তাল হয়েছিল বীরভূমের মল্লারপুর। পথ অবরোধ, থানা ঘেরাও-সব মিলিয়ে অগ্নিগর্ভ হয়েছিল পরিস্থিতি। মৃত বিজেপির সদস্য এই দাবিতে শুক্রবার রাতেই মল্লারপুর থানা ঘেরাওয়ের কর্মসূচি নিয়েছিল রাজ্য বিজেপি।

এদিনের মিছিলে নিজের বক্তব্যে সৌমিত্র খাঁ বলেন, ”আমরা চাইছি থানার ওসিকে গ্রেফতার করা হোক। জুভেনাইল অ্যাক্টে বিচার হোক। কেন‌ও লুকিয়ে লুকিয়ে মৃতদেহ পুড়িয়ে দেওয়া হল তার জবাব দিতে হবে।” সাংসদ কটাক্ষ করে বলেন, ”মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লাশ চুরি করছে এবং অনুব্রত ডাকাতের সর্দার।” তাঁর আরও অভিযোগ, বাংলায় তৃণমূলের মদতে সবথেকে বড় গুণ্ডা।

তবে তাৎপর্যপূর্ণভাবে বিধানসভা নির্বাচনের আগে এই ঘটনাকে নিয়ে প্রায় সমস্ত বিরোধীদল গলা চড়ালেও, মৃতের পরিবার দাবি করেছে তাঁরা তৃণমূল সমর্থক। এদিন সংবাদমাধ্যমের সামনে পরিবারের মানুষ জানান, তাঁরা ঘাসফুলের সমর্থক বহুদিন থেকেই। তৃণমূল করে এসেছেন তৃণমূলেই থাকবেন। বিজেপি কর্মী সমর্থকের বিক্ষোভের মাঝেই তারাপীঠ শ্মশানে শেষকৃত্য সম্পন্ন হল মৃতের।

Related Articles

Back to top button