রাজ্য

৪ এ ৪! ত্রিপুরায় ৪টি আসনেই চতুর্থ স্থানে তৃণমূল, তিন আসনে জয়ী বিজেপি

আজ, রবিবার ছিল ত্রিপুরায় বিধানসভা উপনির্বাচনের ফলাফল। এদিন সকালে ভোট গণনার শুরুর থেকেই ট্রেন্ড বেশ স্পষ্টই ছিল। ভোট বক্স খুলতেই দেখা গেল যে নানান কেন্দ্রেই এগিয়ে ছিলেন ত্রিপুরার মুখ্যমন্ত্রী মানিক সাহা। ভোট গণনার শেষেও সেই ফলাফলই বহাল থাকল।

এই উপনির্বাচন ত্রিপুরায় সাধারণ কোনও নির্বাচন ছিল না। ২০২৩-এর বিধানসভা নির্বাচনের আগে তা ছিল একরকম প্রেস্টিজের লড়াই। টাউন বড়দোয়ালিতে কংগ্রেসকে হারিয়ে ৬ হাজার ভোটে জয়ী হলেন মানিক সাহা। বজায় থাকল তাঁর মুখ্যমন্ত্রীর কুরসি। অন্যদিকে, আগরতলা কেন্দ্রে সহজ জয় পেলেন কংগ্রেসের সুদীপ রায় বর্মন। বিজেপি প্রার্থীকে ৩ হাজারের বেশি ভোটে হারিয়েছেন তিনি। এই আসনে চতুর্থ স্থানে রয়েছে তৃণমূল।

সদ্যই বিজেপি ছেড়ে কংগ্রেসে যোগ দিয়েছিলেন সুদীপ। সঙ্গে ছিলেন আশিস সাহা। উপনির্বাচনে দুজনকেই প্রার্থী করে কংগ্রেস। নিজের শক্তির জোরেই আসন জিতিয়ে আনতে পেরেছেন সুদীপ।  

অন্য দু’টি কেন্দ্রে যুবরাজ নগর এবং সুরমায়ও জয় হয়েছে গেরুয়া শিবিরেরই। যুবরাজ নগরে বিজেপির মহিলা প্রার্থী মলিনা দেবনাথ ৪ হাজার ৫৭২ ভোটে সিপিএম প্রার্থীকে হারিয়েছে। এই কেন্দ্রে তৃণমূল পেল ২.৯৮ শতাংশ ভোট। অন্যদিকে, সুরমায় ৫ হাজারের বেশি ভোটে জিতেছেন বিজেপি প্রার্থী স্বপ্না পাল। দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে তিপ্রা মোথার প্রার্থ। এই কেন্দ্রে জোর লড়াই দেওয়ার আশা রেখেছিল তৃণমূল। কিন্তু তারা পেয়েছে মাত্র ৩.৩৯ শতাংশ ভোট।

ত্রিপুরা উপনির্বাচনের আগে প্রচারে গিয়েছিলেন খোদ তৃণমূল সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়। এছাড়াও, নানান তারকাও তৃণমূলের হয়ে প্রচার করেন উত্তর-পূর্বের এই রাজ্যে। কিন্তু আখেরে লাভের লাভ কিছুই হল না। তৃণমূলের ঝুলি শূন্য। এবার তৃণমূলের লক্ষ্য ত্রিপুরার আসন্ন বিধানসভা নির্বাচন। নিজের সর্বশক্তি দিয়ে যে ঘাসফুল শিবির এই রাজ্যে ঝাঁপিয়ে পড়বে, তা বলাই বাহুল্য। সেই নির্বাচনে আদৌ ত্রিপুরাতে ঘাসফুল ফোটে কী না, এখন সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button