সব খবর সবার আগে।

যুদ্ধ লেগেছে গানে গানে! ‘টুম্পা’ বামেদের, বিজেপির সঙ্গী ‘বেলা চাও, কুমড়ো আঁকড়ে ‘লাভলি’ গাইছেন মদন

‘টুম্পা তোকে নিয়ে ব্রিগেড যাব। চেনা ফ্ল্য়াগে মাঠ সাজাবো’, ভোটের আগে বিগ্রেডের প্রচারে চটুল গানের শব্দে ভোটের মঞ্চ মাতাচ্ছে বাম শিবির! বাম দল মানেই তীব্র অনুশাসন। চটুলতার কোনও স্থান নেই। কিন্তু তৃণমূল-বিজেপির সঙ্গে পাল্লা দিতে নিজেদের চিরকালীন প্রথা ভাঙছে বাম শিবির‌ও।কিন্তু ৩৪ বছরের অনুশাসন এখন মেনে চললে  তৃণমূল, বিজেপি-র সঙ্গে পাল্লা দেওয়া কঠিন হয়ে পড়বে।

আর তাই নিজেদের প্রচার কৌশলও যথাসম্ভব আধুনিক করতে প্রাণপাত করছে বাম ছাত্র-যুবরা৷ আগামী ২৮শে ফেব্রুয়ারি বাম-কংগ্রেসের ব্রিগেডে সমাবেশের প্রচারে তাই টুম্পা সোনা গানের ব্যবহারেও পিছপা নন বাম নেতৃত্ব৷

‘টুম্পা সোনা’ গ্রাসরুট থেকে এলিট সব ক্লাসেরই অনুষ্ঠানে বেজেছে। তবে এই গানের ভাষা বেশ অশ্লীল। সম্প্রতি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে এই গান বাজায় রীতিমতো বিতর্কের ঝড় উঠেছে।আর এবার সেই গানই বামেদের ব্রিগেডের প্রচার দেখে চমকে গিয়েছেন অনেকেই৷ কিন্তু অনেকের মনেই প্রশ্ন ছিল সিপিএমের মতো কড়া অনুশাসন মেনে চলা দলে এই গানের ব্যবহার প্রবীণ নেতারা মেনে নেবেন কি না৷ সেই সম্ভাবনা দূর করে দিয়ে সিপিএম রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র নিজেই গতকাল নিজের ফেসবুক পেজে বামেদের ব্রিগেডের সমর্থনে তৈরি ‘টুম্পা সোনা’ গানের প্যারোডি শেয়ার করে বুঝিয়ে দিয়েছেন, ‘টুম্পা সোনা’ গানের এই প্যারোডিতে পূর্ণ সমর্থন রয়েছে কড়া সিপিএম নেতৃত্বেরও।একুশের নির্বাচনের আগে অলিতে গলিতে এখন বাজিমাত করছে বামেদের টুম্পা প্যারোডি। গানটি লিখেছেন রাহুল পাল। গেয়েছেন নীলাজ্ব নিয়োগী।

আর‌ও পড়ুন-তৃণমূল, বিজেপি’র সঙ্গে পাল্লা দিয়ে প্রচারে অভিনবত্ব আনতে বামেদের হাতিয়ার ‘টুম্পা সোনা’, শেয়ার করলেন সূর্যকান্ত মিশ্র

আর এবার গান ধার নেওয়ার পালা  বিজেপির। ‘টুম্পা’কে জোর টক্কর দিতে ‘বেলা’কে ময়দানে নামালো তাঁরা। বেলা চাও গানের প্যারোডি বার করেছে তাঁরা। সঙ্গে জুড়েছে ‘পিসি যাও’। সোশ্যাল মিডিয়ায় বাঙালির মন মাতাতে কসুর নেই কোন‌ও দলেরই।

তবে বাম-বিজেপির এই গানের লড়াইয়ে কিছুটা পিছিয়ে পড়েছেন মদন মিত্রে’র ‘লাভলি’ গান। কুমড়ো, মূলো, ঢেঁড়স নিয়ে বিজেপিকে আক্রমণ করে তাঁর সব্জি গান বাজারে আসার পর হিট হলেও তেমন চলেনি।

You might also like
Comments
Loading...