রাজ্য

পার্থ-বিতর্কের মধ্যেই নিয়োগ, ২১ হাজার শূন্যপদে নতুন করে স্কুলে শিক্ষক নিয়োগ হবে, ঘোষণা ব্রাত্যর, কবে থেকে চালু হচ্ছে প্রক্রিয়া?

পার্থ-বিতর্কের মধ্যেই এবার স্কুলে ২১ হাজার শূন্যপদে নতুন করে শিক্ষক নিয়োগ করা হবে, এমনটাই ঘোষণা করলেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। তিনি জানান যে পুজোর মধ্যেই ২১ হাজার শূন্যপদে নিয়োগ প্রক্রিয়া শুরু হয়ে যাবে। উচ্চমাধ্যমিক, মাধ্যমিক শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষক পদে নিয়োগ করা হবে জানা যাচ্ছে। এই নিয়ে আধিকারিকদের সঙ্গে বৈঠকও করেন ব্রাত্য বসু।

নতুন নিয়োগ নিয়ে শিক্ষা দফতরের প্রধান সচিব, বোর্ড সভাপতি, বোর্ডের সচিব এবং স্কুল সার্ভিস কমিশনের চেয়ারম্যানকে নিয়ে একটি বৈঠক করেন শিক্ষামন্ত্রী ব্রাত্য বসু। তিনি জানান যে বৈঠকটি অত্যন্ত ইতিবাচক হয়েছে। তাঁর কথায়, উচ্চ প্রাথমিক, নবম-দ্বাদশ এবং একাদশ-দ্বাদশের শিক্ষক ও প্রধান শিক্ষক নিয়োগ নিয়েই এদিন বৈঠক আলোচনা হয়েছে।

তবে মেধা তালিকায় যাদের নাম রয়েছে অর্থাৎ টেট উত্তীর্ণরা যারা আন্দোলন করছেন, তাদের সকলকে কী নিয়োগ করা হবে? সেক্ষেত্রে কী হবে, তা শিক্ষামন্ত্রী স্পষ্ট করে বলেন নি। এই বিষয়ে তিনি বলেছেন, “আইন এবং সহানুভূতির একটা সুষ্ঠু সমন্বয় হওয়া দরকার। আইনি কী প্রক্রিয়া আছে সেটা নিয়ে আমরা আগামী ৮ তারিখ বৈঠকে বসব। কী কী প্রক্রিয়া আছে, খতিয়ে দেখব”।

এই গোটা প্রক্রিয়াটি যাতে নির্ভুল থাকে, সেই জন্য অন্তত মাসখানেক সময় লাগবে। তবে শিক্ষামন্ত্রী জানান যে পুজোর মধ্যে এই প্রক্রিয়া চালু হয়ে যাবে বলে তিনি আশা রাখছেন। তিনি এও জানান যে নিয়োগের নিয়মেও অনেক রদবদল করা হচ্ছে। বিষয়টির আইনি সিলমোহর পেতে আইনমন্ত্রীর কাছে পাঠানো হবে। ব্রাত্য বসুর কথায়, এখন একটাই লক্ষ্য আর তা হল, নিয়োগ প্রক্রিয়ায় যাতে একচুলও ফাঁক না থাকে, তা নিশ্চিত করা।

বলে রাখি, এসএসসি নিয়োগ দুর্নীতির জেরে ইডির হাতে গ্রেফতার হয়েছেন প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়। সেই নিয়ে এখন রাজ্য ও রাজনীতি উত্তাল হয়ে রয়েছে। গ্রেফতার হয়েছেন মন্ত্রী ঘনিষ্ঠ বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ও। তাঁর দু’টি ফ্ল্যাট থেকে উদ্ধার হয়েছে ৫০ কোটি টাকা ও তাল তাল সোনার গয়না। এমন আবহে নতুন করে শিক্ষক নিয়োগ নতুন কোনও বিতর্কের সৃষ্টি করবে কী না, এখন সেটাই দেখার।

Related Articles

Back to top button