রাজ্য

টেট নিয়ে ফের কলকাতা হাইকোর্টের তোপের মুখে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ, সভাপতিকে সশরীরে হাজিরার নির্দেশ

ফের একবার কলকাতা হাইকোর্টের তীব্র তোপের মুখে পড়ল প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ। ২০১৪ টেট প্রাথমিক পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ভুল আসার মামলায় এবার পর্ষদ সভাপতি মানিক ভট্টাচার্যকে সশরীরে আদালতে হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে হাইকোর্টের তরফে।

আগামীকাল সকাল ১১টায় মানিক ভট্টাচার্যকে হাজিরা দিতে বলা হয়েছে বলে জানা গিয়েছে। হাইকোর্টের বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায়ের নির্দেশ দেওয়া সত্ত্বেও কেন ভুল প্রশ্নের উত্তরদাতাদের পুরো নম্বর দেওয়া হল না, এই নিয়ে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের হয়েছিল কলকাতা হাইকোর্টে। সেই মামলার জেরে এদিন পর্ষদ সভাপতিকে ডেকে পাঠাল আদালত।

আরও পড়ুন- মুখোমুখি দুই ‘ঘরের মেয়ে’! শেষ হাসি হাসবে কে? উপনির্বাচনের তাপে ভবানীপুর সরগরম

২০১৪ সালে টেট প্রাথমিক পরীক্ষায় প্রশ্নপত্রতেই ভুল ছিল বলে জানা যায়। এই কারণে ২০১৮ সালে বিচারপতি সমাপ্তি চট্টোপাধ্যায় নির্দেশ দেন যেসমস্ত পরীক্ষার্থী ওই ভুল প্রশ্নের উত্তর দিয়েছেন, তাদের পুরো নম্বর দিতে হবে।

এর আগেও ২০১৪ সালেত টেট প্রাথমিক পরীক্ষায় গাফিলতির অভিযোগে পর্ষদ সভাপতিকে নির্দেশ জরিমানা করা হয় ও ওই জরিমানার টাকা প্রত্যেক মামলাকারীদের দেওয়া হবে বলে নির্দেশ দেয় আদালত। কিন্তু ভুল প্রশ্নের উত্তরদাতাদের নম্বর না দেওয়ার কারণে আদালতের নির্দেশ অবমাননা করার জন্য মানিক ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে এবার মামলা দায়ের করা হয়।

এই মামলা শুনানির আগেই বিচারপতির নির্দেশেই এই মামলায় যুক্ত করা হয় মানিকবাবুকে। কিন্তু বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় এই বিষয়টি নিয়ে খুবই বিরক্ত। এই কারণে তাঁকে সশরীরের হাজিরা দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। মানিকবাবুর আইনজীবীর আদালতের থেকে কিছুটা সময় চাইলেও তাতে কর্ণপাত করেনি আদালত।

আরও পড়ুন- জবরদস্ত লড়াই! ভবানীপুরে কেন্দ্রে প্রচারে নামবেন বিজেপির ২০ প্রভাবশালী নেতা, তৃণমূলের প্রচারেও তারকার হাট

আদালতের মতে, মানিকবাবুর নাম একাধিক মামলায় একাধিকবার উঠে এসেছে। আদালত এই বিষয় নিয়ে বেশ ক্ষুব্ধ। সূত্রের খবর অনুযায়ী, আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী মানিক ভট্টাচার্য হাজিরা দিলে তাঁর বিরুদ্ধে কেন বারবার অভিযোগ উঠছে, এ নিয়ে তাঁকে জিজ্ঞাসাবাদ করবে আদালত।

Related Articles

Back to top button