রাজ্য

ভোট পরবর্তী হিংসা নিয়ে হাইকোর্টে তীব্র ভর্ৎসনা’র মুখে রাজ্য সরকার! মানবাধিকার কমিশন ঘুরে দেখবে রাজ্যের অবস্থা

এতদিন বিজেপি কটাক্ষ করছিল। ‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌‌ এবার ভোট-পরবর্তী ,’হিংসা’ নিয়ে রাজ্য সরকারের তীব্র সমালোচনা করল কলকাতা হাইকোর্ট।

কী জানানো হয়েছে হাইকোর্টে তরফে? শুক্রবার মামলার শুনানিতে হাই কোর্ট পর্যবেক্ষণ করে বলে, “ভোট পরবর্তী হিংসার কথা স্বীকার করেনি রাজ্য সরকার। কিন্তু আমাদের কাছে যে অভিযোগ জমা পড়েছে, তাতে ভোট পরবর্তী হিংসার প্রমাণ পাওয়া গেছে। বিজেপির যে সমস্ত কর্মীরা ঘর ছেড়েছিলেন তাঁদের ঘরে ফেরাতে যে কমিটি গঠন করা হয়েছিল, তাতে রাজ্য ও কেন্দ্রের মানবাধিকার কমিশন ও রাজ্য লিগ্যাল সার্ভিসের প্রতিনিধিরা ছিলেন। কিন্তু কেন্দ্রের মানবাধিকার কমিশন প্রয়োজনীয় সাহায্য পায়নি রাজ্যের থেকে। তাঁদের সঙ্গে অসহযোগিতা করেছে রাজ্য সরকার।”

আরও পড়ুন:‘ফিরে যাও বিজয়বর্গীয়’, বিজেপি শীর্ষ নেতার বিরুদ্ধে পোস্টারে ছয়লাপ কলকাতা!

এরপরই আদালতে তরফে নির্দেশ দেওয়া হয়, কেন্দ্রের মানবাধিকার কমিশন রাজ্যের বিভিন্ন জায়গা ঘুরে দেখবে। আর তাঁদের সাহায্য করবে রাজ্য মানবাধিকার কমিশন। সেইসঙ্গে হাইকোর্টের তরফে জানানো হয়েছে সহযোগিতা না পেলে রাজ্যকে দায় নিতে হবে। কেন্দ্রীয় মানবাধিকার কমিশন আদালতে রিপোর্ট জমা দেবে। এই নির্দেশ না মানলে আদালত অবমাননার দায়ে পড়তে হবে রাজ্যকে।

আরও পড়ুন:হাইকোর্টে পিছলো মমতা-শুভেন্দুর নন্দীগ্রাম মামলার শুনানি! বিক্ষোভ শুরু বার অ্যাসোসিয়েশনের তরফে 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, বাংলায় বিধানসভা নির্বাচন পরবর্তী সময়ে‌ হিংসার কারণে বিভিন্ন এলাকায় অনেক মানুষ ঘরছাড়া। এই অভিযোগ তুলে কলকাতা হাই কোর্টে জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয়। শুক্রবার হয় সেই মামলার শুনানি।  ৫ বিচারপতির সুবৃহৎ বেঞ্চ বসে। প্রাথমিক ভাবে বিচারপতিরা মনে করেছেন, স্বাধীন ভাবে সবার বাঁচার অধিকার রয়েছে। সন্ত্রাসের কারণে কারও নিজের ঘরে ঢুকতে না পারার ঘটনা কাম্য নয়। তাই ওই ঘরছাড়াদের আগে ঘরে ফেরানোর ব্যবস্থা করতে হবে প্রশাসনকে। অশান্তির মামলায় ৩ সদস্যের কমিটি গঠন করে বেঞ্চ। ওই কমিটিতে রয়েছেন রাজ্য ও কেন্দ্রের মানবাধিকার কমিশনের ২ সদস্য এবং রাজ্য লিগ্যাল সার্ভিস কমিটির ১ সদস্য। তাঁরাই এই বিষয়টির উপর নজরদারি করেছেন। পুলিশ কমিটিকে সমস্ত রকম সাহায্য করবে বলে আদালত নির্দেশ দিয়েছিল।

Related Articles

Back to top button