রাজ্য

টেট নিয়ে বড় সিদ্ধান্ত বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়ের! ৫৯ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের মেধাতালিকা প্রকাশের নির্দেশ দিল আদালত

টেট পরীক্ষায় নিয়োগ প্রায় ৫৯ হাজার প্রাথমিক শিক্ষকের সমস্ত তথ্য দিয়ে আগামী ৩০শে নভেম্বরের মধ্যে মেধাতালিকা প্রকাশ করতেই হবে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদকে। আজ, শুক্রবার মামলার শুনানিতে এমনটাই নির্দেশ দিলেন কলকাতা হাইকোর্টের বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায়। শুধু তাই-ই নয়, ওই মেধাতালিকায় পরীক্ষার্থীদের নম্বর-সহ সমস্ত তথ্য প্রকাশ করতে হবে বলেও নির্দেশ দেওয়া হয়েছে।

২০১৪ সালের টেট পরীক্ষার প্রেক্ষিতে দু’দফায় নিয়োগ হয়। প্রথমটি ২০১৬ এবং পরেরটি ২০২০ সালে। দু’দফায় প্রায় ৫৯ হাজার প্রাথমিক শিক্ষক নিয়োগ করা হয়েছিল। সেই শিক্ষকদের সমস্ত তথ্য দিয়ে পুরো মেধাতালিকা প্রকাশ করার নির্দেশ দিল হাইকোর্ট। শিক্ষকরা লিখিত ও মৌখিক পরীক্ষায় কত নম্বর পেয়েছিলেন ও তাঁদের শিক্ষাগত যোগ্যতা-সহ সমস্ত তথ্য প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদকে দিতে হবে বলে নির্দেশ দিয়েছে আদালত।

অন্যদিকে আবার ১৮৭ জন চাকরিপ্রার্থীর নিয়োগ হবে। হাইকোর্টের নির্দেশের পর বিজ্ঞপ্তি দিয়ে প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদ নিয়োগ শুরু করেছে। গত সোমবার ছিল ইন্টরভিউ ও শংসাপত্রও যাচাইয়ের প্রথম ধাপ।

২০১৪ সালে টেট পরীক্ষা দিয়েছিলেন ২১ লক্ষ চাকরিপ্রার্থী। যারা পাশ করেন তাদের মধ্যে থেকে ৫৯ হাজার জনকে নিয়োগ করা হয়েছে। কিন্তু সেই পরীক্ষায় ৬টি প্রশ্ন ভুল ছিল বলে অভিযোগ তোলেন চাকরিপ্রার্থীরা। ২০১৬ এবং ২০১৯ সালের মেধাতালিকা নিয়েও প্রশ্ন উঠেছিল।

সেই নিয়োগ দুর্নীতি নিয়ে মামলা দায়ের করা হয় কলকাতা হাইকোর্টে। অভিযোগ ছিল যে যাদের নিয়োগ করা হয়েছিল, তাদের থেকে পরীক্ষায় বেশি নম্বর পেয়েও চাকরি পান নি অনেকে। কিন্তু কোনও সদুত্তর পাননি কেউ। অবশেষে শুরু হতে চলেছে নিয়োগ প্রক্রিয়া। আজ, শুক্রবার ওই মামলাতেই এই নির্দেশ দিয়েছেন বিচারপতি গঙ্গোপাধ্যায়। কীভাবে নিয়োগ হবে, সেই গোটা প্রক্রিয়া আদালতকে জানাতে হবে পর্ষদকে।

Related Articles

Back to top button