রাজ্য

তৃণমূল সরকারকে জব্দ করতে এবার মমতার জুজু দময়ন্তী সেনকে রাজ্যের একাধিক ধর্ষণ মামলার তদন্তের দায়িত্ব দিল হাইকোর্ট

মাটিয়া, দেগঙ্গা, ইংরেজবাজার, বাঁশদ্রোনির ধ’র্ষ’ণকাণ্ডের মামলায় এবার নজরদারির তদন্ত করবেন আইপিএস দময়ন্তী সেন। আজ, মঙ্গলবার এমনটাই নির্দেশ দিল কলকাতা হাইকোর্ট। এদিন কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব ও বিচারপতি রাজর্ষি ভরদ্বাজের ডিভিশন বেঞ্চ জানায় যে অতীতের অভিজ্ঞতা অনুজায়িম দময়ন্তী সেন নিরপেক্ষভাবে তদন্ত করেছেন। এর মাধ্যমে যে প্রধান বিচারপতি এক দশক আগের পার্কস্ট্রীট ধ’র্ষ’ণকাণ্ডের তদন্তের কথা বোঝাতে চেয়েছেন, তা বেশ স্পষ্ট।

বর্তমানে কলকাতা পুলিশ্র স্পেশাল কমিশনার দময়ন্তী সেন এক দশক আগের পার্কস্ট্রীট গ’ণ’ধ’র্ষ’ণ মামলার সময় কলকাতা পুলিশের গোয়েন্দা প্রধান ছিলেন। তিনি সেই মামলার তদন্ত করেছিলেন। সেই সময় সদ্য রাজ্যে ক্ষমতায় আসা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পার্কস্ট্রীটের এই গ’ণ’ধ’র্ষ’ণ কাণ্ডকে ‘সাজানো ঘটনা’ বলে মন্তব্য করেছিলেন। তবে দময়ন্তী সেন নিজের তদন্তের মাধ্যমে রিপোর্ট দিয়েছিলেন যে ধ’র্ষ’ণ হয়েছে আর তা তিনি সর্বসমক্ষে জানিয়েও ছিলেন।

এদিন আদালত এও বলেছে যে দময়ন্তী সেন যদি এই মামলার নজরদারির তদন্ত না নিতে চান, তাহলে তা তিনি অনায়াসে আদালতকে জানাতে পারেন।

আজ, মঙ্গলবার শুনানির সময় কলকাতা হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি প্রকাশ শ্রীবাস্তব সরাসরি বলেন, “দু থেকে তিনটি ঘটনা পর পর ঘটল। কী হচ্ছে? কেন এমন ঘটনা? আমি বাকরুদ্ধ”।

বিগত বেশ কয়েকদিন ধরে রাজ্যের নানান জেলায় ধ’র্ষ’ণ এবং গ’ণ’ধ’র্ষ’ণের ঘটনা ঘটে চলেছে। প্রধান বিচারপতি সেই প্রেক্ষিতেই ‘বাকরুদ্ধ’ হওয়ার কথা বলেছেন বলে মনে করা হচ্ছে। বলে রাখি, প্রধান বিচারপতির নির্দেশের মধ্যে নদিয়ার হাঁসখালির ধ’র্ষ’ণের ঘটনা নেই। সেই নিয়ে আপাতত রাজ্য রাজনীতি উত্তাল। তবে দময়ন্তীকে দায়িত্ব দেওয়ার মাধ্যমে যে আরও একবার পার্ক স্ট্রিটের ঘটনার স্মৃতি জনসাধারণের মধ্যে ফিরবে, তা বলাই বাহুল্য।

এদিন প্রধান বিচারপতির মন্তব্যের প্রেক্ষিতে রাজ্যের অ্যাডভোকেট জেনারেল সৌমেন্দ্রনাথ মুখোপাধ্যায় বলেন, “কলকাতা দেশের মধ্যে নিরাপদ শহর। আর দিল্লিতেই এমন ঘটনা ঘটে। আমি এখানে ছোট থেকে বড় হয়েছি। এখানে সব কিছুতে রাজনীতি জড়িয়ে থাকে। গলিতে গলিতে রাজনীতি হয়। যে সব ঘটনা ঘটছে তার জন্য আমি দুঃখিত”। এই মামলার শুনানি রয়েছে আগামী ২০শে এপ্রিল।

Related Articles

Back to top button