রাজ্য

প্রাথমিক টেট মামলায় পর্ষদ সভাপতিকে জরিমানা করল হাইকোর্ট, সেই জরিমানার টাকা পাবেন মামলাকারীরা

২০১৪ সালের প্রাথমিক টেট পরীক্ষায় ছ’টি প্রশ্নে ভুল ছিল। এই নিয়ে মামলা করা হয় কলকাতা হাইকোর্টে। এবার সেই মামলায় প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতি মানিল ভট্টাচার্যকে জরিমানা করল আদালত।

আজ, শুক্রবার বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় নির্দেশ দেন যে পর্ষদ সভাপতিকে নিজের আয় থেকে ৩,৮০,০০০ টাকা জরিমানা দিতে হবে। সেই মতো হিসেব করলে দাঁড়ায় যে মোট ১৯ জন মামলাকারী ২০,০০০ টাকা করে পাবেন।

আরও পড়ুন- ‘চাপ নিলেই সব ভুলে যাবে, চাপ কমাতে দিঘা ঘুরে আসতে পারো’, ছাত্রছাত্রীদের পরামর্শ মুখ্যমন্ত্রীর

ছ’টি প্রশ্নে ভুল থাকা নিয়ে আগেই ২০১৪ সালের প্রাথমিক টেটের কয়েকজন প্রার্থী কলকাতা হাইকোর্টে মামলা করেছিলেন। এই মামলায় আদালত নির্দেশ দেয় যে কোনও পরীক্ষার্থী যদি ওই প্রশ্নগুলির উত্তর দেন, তাহলে তাঁকে পুরো নম্বর দিতে হবে।

কিন্তু অভিযোগ, আদালতের নির্দেশের পরও পড়ুয়াদের এখনও নম্বর দেওয়া হয়নি। আদালতের মতে এর জেরে হেনস্থা হতে হয়েছে প্রার্থীদের। এই নিয়ে আজ, শুক্রবার প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের কাছে হাইকোর্ট জানতে চায় যে কেন নির্দেশ দেওয়া সত্ত্বেও নম্বর দেওয়া হয়নি? এরপরই প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের সভাপতিকে হাইকোর্টের তরফে জরিমানা করা হয়।

বিচারপতি অভিজিৎ গঙ্গোপাধ্যায় জানান, ২০১৪ সালের প্রাথমিক টেটের ছ’টি প্রশ্নে ভুল ছিল। যেসব পরীক্ষার্থীরা সেই প্রশ্নগুলির উত্তর দিয়েছিলেন, তাঁদের পুরো নম্বর দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়। কিন্তু পর্ষদ এখনও পর্যন্ত সেই নম্বর দেয়নি। এর জেরে প্রার্থীদের হেনস্থার শিকার হতে হয়েছে। এই কারণে পর্ষদ সভাপতিকে জরিমানা দেওয়ার কথা বলা হয়েছে বলে জানানো হয়।

আরও পড়ুন- মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের মুখের আদলে হবে দুর্গা প্রতিমার মুখ, নতুন থিম ঘিরে হইচই কলকাতার ক্লাবে

বলে রাখি, রাজ্যে তৃতীয়বার ক্ষমতায় আসার পরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় শিক্ষক নিয়োগের ক্ষেত্রে উদ্যোগ নেন। রাজ্য সরকারের তরফে জানানো হয়েছে, এবছর পুজোর আগেই ২৪,৫০০ শিক্ষক নিয়োগ করা হবে। এর পাশাপাশি পুজোর পরে ৭,৫০০ জনের হাতে প্রাথমিক শিক্ষকের নিয়োগ করবে রাজ্য। আগামী বছর মার্চের মধ্যে সেই প্রক্রিয়া সম্পূর্ণ হবে বলে জানানো হয়েছে।

Related Articles

Back to top button