রাজ্য

‘টুপিটা তো পরলেন, লুঙ্গিটা পরবেন কবে’, ফেজ টুপি পরা নিয়ে বাবুলকে বেলাগাম কটাক্ষ দিলীপের

দিলীপ ঘোষ নিজের নানান বিতর্কমূলক মন্তব্য দিয়ে যে রাজ্য রাজনীতিতে বেশ শোরগোল ফেলে দেন, তা আর বলার অপেক্ষা রাখে না। তৃণমূলের বিরুদ্ধে নানান কটাক্ষ বাণ ছোঁড়েন তিনি। তাঁর এই কড়া ভাষায় আক্রমণ অনেকেই আবার বেশ উপভোগও করেন বটে। এবার সদ্য তৃণমূলে যোগ দেওয়া বাবুল সুপ্রিয়কে নিয়ে তিনি যে মন্তব্য করলেন, তা রাজ্য রাজনীতিতে বেশ হইচই ফেলেছে।

একুশের বিধানসভা থেকে শুরু করে, কলকাতা ও চার পুরনিগমে নির্বাচন, ১০৮টি পুরসভায় নির্বাচন, উপনির্বাচন, সব ক্ষেত্রেই ভরাডুবি হয়েছে বিজেপির। এর উপর একের পর এক নেতা, বিধায়ক গেরুয়া শিবির ছেড়ে তৃণমূল যোগ দিয়েছেন। কিছু জন দল ওয়াপসি করেছেন। এমনকি, গত বছরের সেপ্টেম্বর মাসে বিজেপি সাংসদ বাবুল সুপ্রিয়ও তৃণমূল শিবিরে যোগ দিয়েছেন।

এরপর থেকেই বাবুলকে তৃণমূলের নানান সভায় দেখা গিয়েছে। আর এখন তো তিনি বালিগঞ্জ উপনির্বাচনে তৃণমূলের প্রার্থী। সম্প্রতি, বাবুল সুপ্রিয়কে দেখা গেল একটি ফেজ টুপি পরে তৃণমূলের হয়ে বক্তব্য রাখতে। আর এরপরই নানান সমালোচনার মুখোমুখি হন প্রাক্তন বিজেপি সাংসদ। সিপিএম ও বিজেপির তরফে কটাক্ষ করা হয় তাঁকে।

রাজ্য রাজনীতিতে বাবুল সুপ্রিয় ও দিলীপ ঘোষের সংঘর্ষের কথা কারোরই অজানা নয়। এর আগেও একে অপরকে নানানভাবে শানিয়েছেন তারা। এবারও এর অন্যথা হল না। বাবুলের গফেজ টুপি পরা নিয়ে তাঁকে কড়া বাক্যবাণে বিঁধলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষ।

এই বিষয়ে তিনি বলেন, “আমি বাবুলকে জিজ্ঞাসা করতে চাই টুপিটা পরেছেন, লুঙ্গিটা কবে পরবেন সেটাও বলে দিন। এখান থেকে বোঝা যাচ্ছে কে জোকার”। দিলীপ ঘোষের সংযোজন,  তারা সবসময় আদর্শের পক্ষে এবং তারা কখনোই রোজ রোজ দল বদল করে না। বাবুল সুপ্রিয়কে দেগে তিনি আরও বলেন, “তাঁর শুধু মন্ত্রিত্ব চাই, গাড়ি চাই এবং সিকিউরিটি চাই। এটাই জীবনের লক্ষ্য তাঁর”।

তবে এদিকে বালিগঞ্জ থেকে প্রার্থী হওয়ায় বেশ খোশ মেজাজেই রয়েছেন বাবুল সুপ্রিয়। সেখানকার মানুষের সঙ্গে নিয়মিত যোগাযোগ স্থাপন করার চেষ্টা করছেন তিনি। এই কারণে একাধিকবার তাঁকে সেখানে জনসভা করতে দেখা যাচ্ছে। তৃণমূলের হয়ে বক্তব্য রাখতে গিয়ে তিনিও বেশ শানাচ্ছেন নিজের প্রাক্তন দলকে।

Related Articles

Back to top button