রাজ্য

‘সবচেয়ে বড় অশিক্ষিত রামকৃষ্ণদেব, রবীন্দ্রনাথও বেশি লেখাপড়া করেন নি’, তথাগত রায়ের পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে বিতর্কে দিলীপ

বিজেপি নেতা তথাগত রায়ের ‘অর্ধশিক্ষিত’ কথার পাল্টা জবাব দিতে গিয়ে রামকৃষ্ণদেব ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রসঙ্গ টেনে আনলেন দিলীপ ঘোষ। আর এর জেরে ফের একবার বিতর্কের মুখে পড়লেন তিনি। তিনি বলেন, “কার কটা ডিগ্রি আছে, কটা বই পড়েছে, তা নিয়ে আমাদের দেশে কেউ ভাবেননি। এটাই ভারতবর্ষের সংস্কৃতি। যাঁরা দেশকে চিনতে পারে না, তাঁদের দায় এটা”। তাঁর এই মন্তব্য স্বাভাবিকভাবেই বেশ আলোড়ন তৈরি করেছে।

নিজের কথার ব্যাখ্যা দিতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ টেনে আনেন রামকৃষ্ণদেন ও রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের প্রসঙ্গ। বলেন, “সবচেয়ে বড় অশিক্ষিত রামকৃষ্ণদেব ছিলেন। রামকৃষ্ণদেবের বাণী নিয়ে আমাদের সমাজ এগিয়েছে। তাঁর বই সবার ঘরে ঘরে আছে। রবীন্দ্রনাথ বোধহয় আট ক্লাস পাশ। বেশি লেখাপড়াও করেননি। এটাই ভারতবর্ষের সংস্কৃতি”।

দিলীপ ঘোষের মতে, কে কতটা বই পড়ল, যার কত ডিগ্রি রয়েছে, তা নিয়ে শিক্ষিত, অশিক্ষিতের মাপকাঠি নির্ধারণ করা যায় না। তথাগত রায়ের নাম না নিয়েই তাঁর মন্তব্যের জবাব দিতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ বলেন যে এসমস্ত কথা যারা বলেন, তাদের শিক্ষা নিয়েই শেষমেশ প্রশ্ন ওঠে।

বলে রাখি, বিজেপির সর্বভারতীয় সহ-সভাপতি দিলীপ ঘোষকে অর্ধশিক্ষিত বলে আক্রমণ শানান বিজেপি নেতা তথাগত রায়। শুধু তাই-ই নয়, তিনি এও বলেন যে তিনি যদি দল ছাড়েন, তাহলে অনেকের অনেক গোপন কথাই তিনি ফাঁস করে দেবেন।

এদিকে, দিলীপের এই মন্তব্যের পাল্টা প্রতিক্রিয়া দিতে ছাড়েননি তৃণমূল সাংসদ সৌগত রায়। এই প্রসঙ্গে তিনি জানান, “‌দিলীপ ঘোষ নিজেই একজন অশিক্ষিত, উজবুক। এইজন্যই তো ওঁকে সভাপতির পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। এখন আর পশ্চিমবঙ্গে বলে না, দিল্লিতে গিয়ে বলে। ওর কথা উপেক্ষা করব। যে কথা রামকৃষ্ণদেব, রবীন্দ্রনাথ সম্পর্কে বলেছে, তাতে সমস্ত বাঙালি জাতি ওঁকে ঘৃনা করবে”।

Related Articles

Back to top button