সব খবর সবার আগে।

লকডাউনের মধ্যেও পুরো স্কুল ফি, বিক্ষোভে নেমেছেন বাবা-মারা, স্কুলের ফি নিয়ে রাজ্যকে তোপ দিলীপের

করোনার মধ্যেও চলছে প্রাইভেট স্কুলের ফি বৃদ্ধি। এবার সেই নিয়ে সরকারকে কটাক্ষ করলেন বিজেপি রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ। তিনি মন্তব্য করেন, প্রাইভেট স্কুলগুলির উপর সরকারের কোনো নিয়ন্ত্রণ নেই, তাই প্রাইভেট স্কুলগুলিতে ফি বৃদ্ধি হয়েই চলেছে। যার জেরে প্রতিদিনই কলকাতায় বেসরকারি স্কুলগুলির সামনে বিক্ষোভ করছেন অভিভাবকরা। সারা দেশে এই রাজ্য বাদে এমন চিত্র আর কোথাও নেই বলে দাবি করেন দিলীপ ঘোষ।

বেসরকারি স্কুলগুলি যাতে যেমন ইচ্ছা ফি বাড়াতে না পারে সেদিকে সরকারের নজর দেওয়া উচিত। দরকার হলে এই বিষয়ে সরকারের হস্তক্ষেপও করা উচিত। না হলে দিন দিন সমস্যা আরও বাড়বে বলে মন্তব্য করেন দিলীপ ঘোষ। উল্লেখ্য, কলকাতায় বেসরকারি স্কুলগুলির সামনে রোজই বিক্ষোভ দেখাচ্ছেন অভিভাবকরা। এদিন বউ বাজারে একটি বেসরকারি স্কুলের সামনে বিক্ষোভ দেখান অভিভাবকরা।

এদিন দিলীপ ঘোষ বলেন, রাজ্যে স্বাস্থ্য ও শিক্ষা ব্যবস্থা দুটোই প্রাইভেটের মাধ্যমে চলছে। করোনার ক্ষেত্রে বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা ঠিকমতো হলেও সরকারী হাসপাতাল গুলিতে চিকিৎসা হচ্ছে না বলে বুধবার বিজেপির সদর দফতরে এক সাংবাদিক বৈঠকে অভিযোগ করেন দিলীপ ঘোষ। তিনি বলেন, কেন্দ্রের তরফে অনেক আগেই রাজ্যের স্বাস্থ্য পরিকাঠামোকে মজবুত করতে সুপারিশ করা হয়েছে। কিন্তু রাজ্য কিছুই করেনি। তাই এখন রাজ্যে করোনা সংক্রমণে মৃত্যুও বেড়েই চলেছে।

বুধবার লকডাউনের মধ্যে স্কুল ফি নেওয়াকে কেন্দ্র করে বউবাজারের সেন্ট মাইকেল স্কুলের সামনে সকাল থেকে অভিভাবকদের বিক্ষোভ চোখে পড়ল। অভিভাবকদের অভিযোগ, গত তিন মাস ধরে লকডাউন চললেও স্কুল কর্তৃপক্ষ পড়ুয়াদের কাছ থেকে পুরো ফি দাবি করছে।

অভিভাবকদের বক্তব্য, বর্তমানে সবাই এক কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে। লকডাউনের জেরে অনেকেরই কাজ নেই। এমনকি অধিকাংশেরই বেতন কমে গেছে। এইরকম সংকটের দিনে অভিভাবকদের পক্ষে পুরো ফি দেওয়া সম্ভব হচ্ছে না। অভিভাবকরা স্কুল কর্তৃপক্ষের কাছে দাবি জানিয়েছে, ছাত্র-ছাত্রীদের যেন গত তিন মাসের স্কুল ফি মুকুব করা হয়।

You might also like
Leave a Comment