রাজ্য

পার্থ যদি মাস্টারমাইন্ড হন, মানিক তাহলে কিংপিন, নিয়োগ দুর্নীতিতে তৃণমূল বিধায়কের নামে প্রথম চার্জশিট পেশ করল ইডি

টেট নিয়োগ দুর্নীতি মামলায় অনেকদিন আগেই গ্রেফতার হয়েছিলেন প্রাথমিক শিক্ষা পর্ষদের প্রাক্তন সভাপতি মানিক ভট্টাচার্য। ইডির তাঁকে গ্রেফতার করার ৫৭ দিনের মাথায় তাঁর নামে প্রথম চার্জশিট পেশ করল। আজ, বুধবার ব্যাঙ্কশাল কোর্টে এই চার্জশিট জমা দেয় ইডি।

সূত্রের খবর অনুযায়ী, ইডির এই চার্জশিটে ভালোভাবে উল্লেখ করা রয়েছে কীভাবে নিয়োগ দুর্নীতিতে জাল বিস্তার করেছিলেন মানিক। কীভাবে তিনি কোটি কোটি টাকা নয়ছয় করেছেন। এর আগে প্রাক্তন শিক্ষামন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধে চার্জশিটে মানিকের নাম উল্লেখ করা ছিল। মানিকের সঙ্গে পার্থর হোয়াটসঅ্যাপের কথোপকথনের কথা উল্লেখ করা হয় সেখানে।

এদিন আদালতে ইডি যে চার্জশিট দিয়েছে তাতেও সেই একই কথার উল্লেখ আছে বলে জানা গিয়েছে। ইডির কথায়, এই দুর্নীতি মামলায় পার্থ চট্টোপাধ্যায় যদি ‘মাস্টারমাইন্ড’ হন তো মানিক ছিলেন ‘কিংপিন’। সেই বিষয়টাও চার্জশিটে উল্লেখ করা হয়েছে। তাছাড়া পার্থ চট্টোপাধ্যায়ের বান্ধবী অর্পিতা মুখোপাধ্যায়ের বাড়ি থেকে যে নগদ টাকা উদ্ধার হয়েছে তার সঙ্গেও মানিকের যোগ রয়েছে বলে দাবী করেছে ইডি।

ইডির পেশ করা এই চার্জশিটে মানিক ভট্টাচার্যের স্ত্রী ও ছেলের নামও উল্লেখ রয়েছে বলে খবর। তাতে জানা গিয়েছে যে লেনদেনের অধিকাংশটাই মানিকের স্ত্রী ও ছেলের মারফত হত। ইডির আইনজীবী জানিয়েছিলেন যে মানিক ভট্টাচার্যের স্ত্রীর সঙ্গে মৃত্যুঞ্জয় চক্রবর্তী নামের একজনের জয়েন্ট অ্যাকাউন্ট রয়েছে। এই মৃত্যুঞ্জয় চক্রবর্তী ২০১৬ সালে মারা গিয়েছেন। ওই অ্যাকাউন্টে কয়েক কোটি টাকা রয়েছে। সূত্রের খবর, সেই বিষয়টাও চার্জশিটে উল্লেখ করেছে ইডি।

এর আগেই জানা গিয়েছিল যে বিএড-ডিএলএড কলেজে অফলাইনে ভর্তি করানোর নামে কোটি কোটি টাকা আত্মসাৎ করেছিলেন মানিক ভট্টাচার্য। তাঁর ঘনিষ্ঠ তাপস মণ্ডলকে এই নিয়ে একাধিকবার জেরা করে ইডি। তাপসের বয়ানের রেকর্ডও এই চার্জশিটে রয়েছে বলে খবর।

Related Articles

Back to top button