রাজ্য

ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলের গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব! মাথা লক্ষ্য করে চলল গুলি, ছররা গুলির জেরে ঝাঁঝরা দুই গোষ্ঠীর ১০ জন, উত্তপ্ত ইসলামপুর

ফের প্রকাশ্যে তৃণমূলে গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব। এলাকা দখলের লড়াইয়ের জেরে ভর সন্ধ্যায় চলল ছররা গুলি। উত্তপ্ত উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর এলাকা। এই গুলির আঘাতে আহত দুই গোষ্ঠীরই ১০ জন। আহতদের ইসলামপুর মহকুমা হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয় বলে জানা গিয়েছে। এই গোলাগুলির ঘটনায় এলাকায় তীব্র উত্তেজনা ছড়িয়েছে।

স্থানীয় সূত্রে খবর অনুযায়ী, এলাকা দখলকে কেন্দ্র করে এই দুই গোষ্ঠীর মধ্যে গুলিগোলা, বোমাবাজি চলতে থাকে। গতকাল, সোমবার রাতেও উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে আতঙ্কের পরিবেশ তৈরি হয় এই গুলিগোলা, বোমার জেরে জখম হয়েছেন ১০ জন। তাদের মধ্যে পাঁচজন একই পরিবারের সদস্য বলে খবর। রাজনৈতিক গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের জেরেই এই ঘটনা ঘটেছে। পুলিশ পিকেট বসানো হয়েছে এলাকায়।

সূত্রের খবর, ওই এলাকায় দায়মুল হক এবং খোলাই প্রধান নামে দুই তৃণমূল নেতার অনুগামীদের মধ্যে সম্পর্ক আদায়-কাঁচকলায়। এলাকায় প্রায় সময়ই উত্তেজনা লেগে থাকে। আর গোলাগুলি বা বোমাবাজির ঘটনা নতুন কিছু নয়। দায়মুল হক হলেন স্থানীয় গোবিন্দপুর গ্রাম পঞ্চায়েতের উপপ্রধান। আর এদিকে খোলাই প্রধান এককালে সিপিএম করলেও বর্তমানে তিনি শাসকদলের স্বঘোষিত নেতা বলেই পরিচিত।

গতকালের গোলাগুলির ঘটনায় দু’পক্ষেরই ১০ জনের বেশি আহত হয়েছেন। জানা গিয়েছে, দায়মুল হকের গোষ্ঠীর একই পরিবারের ৫ জন আহত হয়েছেন। এক যুবকের বুক, মুখ ঝাঁঝরা হয়ে গিয়েছে গুলিতে। আহত এক ব্যক্তি দাবী করেছেন, “ খোলাই-এর লোকজন বাইরে থেকে লোক এনে আমাদের বাড়িতে চড়াও হয়েছে। ঘরে ঢুকে গুলি চালায় তারা”।

অন্যদিকে আবার এক স্থানীয় তৃণমূল নেতা মহম্মদ আনিস জানান, “খোলাই সিপিএমের এককালে প্রধান ছিলেন। এখন উনি কিছুই নন। কোনও পদ নেই। এলাকা দখল করার জন্য আসলে উনি এসব করাচ্ছেন”। খোলাইয়ের অনুগামীদের মধ্যেও ৫ জন আহত হয়েছেন বলে জানা গিয়েছে। তারা দাবী জানিয়েছে যে ঘটনার দিন গভীর রাতে তাদের উপর পাল্টা হামলা হয়। এই পক্ষের আহতদের দাবী, তারা সকলেই তৃণমূল করেন।

Related Articles

Back to top button