রাজ্য

‘সারাদিন ধরে ফেসবুক-ইউটিউব করলে তো ফেল করবেই’, উচ্চমাধ্যমিকে ফেল করা পড়ুয়াদের রাস্তা অবরোধে ক্ষিপ্ত আমজনতা

চারিদিকে যেন এখন অবরোধের হাওয়া লেগেছে। গোটা রাজ্যে কোথাও না কোথাও অবরোধের খবর ঠিকই মিলছে নিয়ম করে। সে এবার পয়গম্বর বিতর্কের জেরে প্রতিবাদ জানিয়ে অবরোধ হোক বা উচ্চমাধ্যমিকে ফেল করা পড়ুয়াদের পাশ করানোর দাবী জানিয়ে অবরোধ হোক।

গত শুক্রবার প্রকাশিত হয়েছে উচ্চমাধ্যমিকের ফলাফল। এবছরের ফলাফল মোটের উপর ভালো হলেও বেশ কিছু পড়ুয়া পাশ করতে পারে নি। আর সেই নিয়েই রাজ্যের নানান প্রান্তে শুরু হয়েছে প্রতিবাদ, বিক্ষোভ। পাশ না করা পড়ুয়াদের দাবী, তাদের পাশ করাতে হবে। হুঁশিয়ারিও দিয়েছে কেউ কেউ।

বনগাঁ থেকে শুরু করে সাঁইথিয়া, সল্টলেক, যশোর রোড, বাগডোগরা সব জায়গাতেই উচ্চমাধ্যমিকে পাশ না করা পড়ুয়ারা বিক্ষোভ দেখাচ্ছে। এবার সেই বিক্ষোভের আঁচ দেখা গেল জলপাইগুড়িতেও। সেখানেও কদমতলা মোড় অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় কদমতলা বালিকা বিদ্যালয়ের ছাত্রীরা। বেশ কিছু ছাত্রী উচ্চমাধ্যমিকে পাশ করেনি।

এর জেরে গতকাল, সোমবার রাস্তা অবরোধ করে বিক্ষোভ দেখায় সেই ফেল করা ছাত্রীরা। তাদের মুখে একটাই কথা, তাদের পাশ করাতেই হবে। ছাত্রীদের এই প্রতিবাদের জেরে রাস্তা অবরোধ করে রাখায় আটকে পড়েন সাধারণ মানুষ। নিজেদের নিত্যদিনের কাজকর্মে যেতে দেরি হয়ে যায় অনেকেরই। কিন্তু অবরোধ তোলে না ছাত্রীরা।

এমন প্রতিবাদে কার্যত ধৈর্যের বাঁধ ভেঙে যায় পথচারীদের। ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠে তারা। পড়ুয়াদের বারবার তারা বলেন যাতে তারা এই অবরোধ তুলে নেয় আর এভাবে বিক্ষোভ না করে। কিন্তু নিজেদের জায়গায় অনড় থাকে ছাত্রীরাও। এরই মাঝে ঘটে যায় একটি ঘটনা, যার জেরে বেশ চাঞ্চল্য ছড়ায়।

ছাত্রীদের এমন বিক্ষোভের জেরে এক ব্যক্তি বলেন যে সারাক্ষণ যদি শুধু ইউটিউব আর ফেসবুক করে, তাহলে আর কীভাবে পাশ করবে। এও বলেন যে তারাও তো অনেক সময় ফেল করেছেন, কিন্তু তা বলে এভাবে ঘণ্টার পর ঘণ্টা ধরেও পথ আটকে সাধারণ মানুষের অসুবিধা করেন নি কোনওদিন।

এমন কথা শুনেই রীতিমতো ওই ব্যক্তির দিকে তেড়ে যায় বিক্ষোভরত ছাত্রীরা। দু’পক্ষের মধ্যে তুমুল বচসা বাঁধে। ওই ব্যক্তিও বেশ ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এই ঘটনায়। তুমুল উত্তেজনা ছড়ায় স্কুলের গেটের বাইরে। শেষ পর্যন্ত পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। জোর করেই ছাত্রীদের ও ওই ব্যক্তিকে সেখান থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়। তবে এই ঘটনার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় শেয়ার হতেই তুমুল ভাইরাল হয়েছে।

Related Articles

Back to top button