রাজ্য

বর্ষবরণেও মানতে হবে কোভিড সুরক্ষাবিধি, ভিড় নিয়ন্ত্রণে কড়া নির্দেশ হাইকোর্টের

বিভিন্ন পুজোতে ভিড় নিয়ন্ত্রণের জন্য নানা নির্দেশ জারি করা হয়েছিল হাইকোর্টের তরফ থেকে। এর জেরে করোনা পরিস্থিতি খানিকটা নিয়ন্ত্রণে আনা সম্ভব হয়েছিল। এরপর বর্ষবরণেও ভিড় নিয়ন্ত্রণের জন্য ফের একবার কড়া নির্দেশ জারি করা হল হাইকোর্টের পক্ষ থেকে।.

শুধুমাত্র কলকাতা নয়, সারা রাজ্যেই যাতে বর্ষবরণের দিনে বা রাতে মাত্রাতিরিক্ত ভিড় না হয়, সেইজন্য মুখ্যসচিব ও স্বরাষ্ট্রসচিবকে কড়া নির্দেশ জারি করা হল। জায়গায় জায়গায় চেকপোস্ট বসিয়ে নজরদারি চালাতে হবে, এমন নির্দেশও দেওয়া হল। সকলের মাস্ক ও স্যানিটাইজার ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক।

একদিকে যখন করোনার নতুন প্রজাতিকে ঘিরে সারা দেশে আতঙ্ক ছড়াচ্ছে, সেখানে অন্যদিকে বড়দিনে আনন্দে মেতে উঠেছে রাজ্যবাসী। অন্যান্য বছরের মতো না হলেও পার্কস্ট্রীট ও চিড়িয়াখানায় বেশ ভালো রকমের ভিড়ই চোখে পড়েছে এই বছর। লাগামছাড়া ভিড় ছিল নিকোপার্কেও। এই ভিড়ের মধ্যে যে সকলেই করোনার সুরক্ষাবিধি মেনেছিলেন, এমনটাও নয়। এর জেরে বেশ উদ্বিগ্ন চিকিৎসক মহল। সামনেই বর্ষবরণ, এই সময়ও যাতে ভিড়ের একই চিত্র না লক্ষ্য করা যায়, এইজন্য একটি জনস্বার্থ মামলা দায়ের করা হয় হাইকোর্টে। সেই মামলার প্রেক্ষিতেই এই রায় দিল হাইকোর্টের বিচারপতি মৌসুমি ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ।

প্রসঙ্গত, গত ২৫শে নভেম্বর থেকে ২৩শে ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্রিটেন থেকে ফিরেছেন মোট ৩৩ হাজার যাত্রী। এদের সকলের করোনা পরীক্ষা করা হলে, ১১৫ জনের রিপোর্ট পজিটিভ আসে। এদের মধ্যে ৬ জনের শরীরে মিলেছে করোনার নতুন প্রজাতির হদিশ। এই ৬ জনের মধ্যে ৩ জন বেঙ্গালুরু, ২ জন হায়দ্রাবাদ ও ১ জন পুণের বাসিন্দা। এদের সকলকেই পৃথকভাবে করোনা সেন্টারে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। আপাতত, ২৩শে ডিসেম্বর থেকে ৩১শে ডিসেম্বর পর্যন্ত ব্রিটেন থেকে আগত সমস্ত বিমান স্থগিত রাখা হয়েছে।

Related Articles

Back to top button