রাজ্য

চলতি বছরে আমফানের স্মৃতি উস্কে ফের আছড়ে পড়তে পারে ঘূর্ণিঝড়! কি বলছে আবহাওয়া দপ্তর

বিভিন্ন নিউজ সাইটসহ সোশ্যাল মিডিয়ায় একটি খবর দেখা যাচ্ছে যে চলতি বছরেও পশ্চিমবঙ্গে ও উড়িষ্যা উপকূলে আছড়ে পড়তে পারে ভয়ংকর ঘূর্ণিঝড়‌। ঘূর্ণাবর্ত নাকি তৈরি হচ্ছে বঙ্গোপসাগরে।

কিন্তু এই খবরের সত্যতা কতটা?

বিষয়টি নজরে পড়তেই আলিপুর আবহাওয়া দপ্তর জানাল, এই তথ্য সম্পূর্ণ ভাবেই ভিত্তিহীন l গতকাল অর্থাৎ মঙ্গলবার সোশ্যাল মিডিয়ায় হঠাৎই ছড়িয়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড়ের খবর। জানা যায়, মার্চের শেষ অথবা এপ্রিলের প্রথমে ঘণ্টায় ১৫০ কিলোমিটার বেগে ঘূর্ণিঝড় আছড়ে পড়তে পারে বঙ্গে। আর যার নাম ‘টাউকতে’।

আমফানের মোকাবিলা করা বাঙালি এই  খবরে স্বাভাবিকভাবেই অত্যন্ত আতঙ্কিত হয়ে পড়েন অনেকে। জনজীবন ব্যহত হওয়ার আশঙ্কায় ছড়িয়ে পড়ে উদ্বেগ। এই পরিস্থিতিতে সাধারণ মানুষের স্বার্থে আলিপুর আবহাওয়া দপ্তরের তরফে জানানো হল, এই ঘূর্ণিঝড়ের খবর একেবারেই ভুল। আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন, আগামী ১০ দিনেও বঙ্গে ঘূর্ণাবর্তের কোনও সম্ভাবনা নেই। পাশাপাশি জানানো হয়েছে, কোনওরকম ঘূর্ণিঝড়ের সম্ভাবনা থাকলে, তা আগেভাগেই প্রেস রিলিজ দিয়ে জানিয়ে দেওয়া হবে।

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছর মে মাসে রাজ্যে আছড়ে পড়েছিল মহাশক্তিশালী ঘূর্ণিঝড় আমফান। লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় বাংলা। উপরে পড়ে হাজার হাজার গাছ। স্তব্ধ হয় জনজীবন। অন্ধকারের দিন কাটে। মাথার উপরের ছাদ হারায় কয়েক হাজার পরিবার। স্বাভাবিক গতি হারিয়েছিল শহর কলকাতা। গোটা জেলার অবস্থাও কার্যত হয়ে গিয়েছিল একইরকম। আমফান তাণ্ডব চালানোর পর প্রায় ৪ থেকে ৫ দিন বিদ্যুৎ বিচ্ছিন্ন ছিল বহু এলাকা। জনজীবন স্বাভাবিক হতে কোথাও কোথাও একমাসেরও বেশি সময় লেগেছে। স্বাভাবিকভাবেই এই ঘূর্ণিঝড়ের খবরে আঁতকে উঠেছিল আমজনতা।

উল্লেখ্য, মার্চ থেকে মে, এই তিনমাস ঘূর্ণিঝড়ের প্রবল সম্ভাবনা থাকে l

Related Articles

Back to top button