সব খবর সবার আগে।

‘আমার সঙ্গে পাঙ্গা নিতে এলে হাড়গোড় এক করে দেব’, রবিউলকে হুমকি শানালেন হুমায়ুন, প্রকাশ্যে তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্ব

এতদিন চাপা চাপা ক্ষোভ তো ছিলই, এখন তা প্রকাশ্যেই চলে এল। মুর্শিদাবাদে তৃণমূলের অন্তর্দ্বন্দ্ব প্রকাশ্যে এল। এই পরিস্থিতি তৃণমূলের অস্বস্তি আরও বাড়ল। এক বিধায়ক হুমকি শানালেন অন্য এক বিধায়ককে।

এর জেরে অন্তর্দ্বন্দ্ব আর নিচুস্তরে চাপা পড়ে রইল না। তা শীর্ষ নেতাদের মধ্যেও ছড়িয়ে পড়েছে বলেই মনে করা হচ্ছে। প্রকাশ্য সভায় রেজিনগরের বিধায়ক রবিউল আলম চৌধুরীকে হুমকি দিলেন ভরতপুরের বিধায়ক হুমায়ুন কবীর। হুমায়ুনের বিরুদ্ধে দলের শীর্ষস্তরে নালিশও ঠুকলেন রবিউল।

আরও পড়ুন- ফের বিতর্কে জড়ালেন তৃণমূলের নির্মল মাজি, কলকাতা মেডিক্যাল কলেজের মহিলা ইন্টার্নকে হুমকির অভিযোগ

আসলে ঠিক কী ঘটেছে?‌

তৃণমূল সূত্রে খবর, গতকাল বৃহস্পতিবার শক্তিপুরে একটি সভা ছিল। সেখানে বক্তা হিসাবে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক হুমায়ুন কবীর। অভিযোগ, সেই সভা থেকে রবিউলের উদ্দেশ্যে হুমকি দেন তিনি। সভা থেকে হুমায়ুনকে বলেন, “খুব সাবধান রবিউল চৌধুরি। আমার সঙ্গে পাঙ্গা নিও না। তাহলে হাড়গোড় এক করে দেব”।‌ সেই ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় বেশ ভাইরাল হয়েছে। এই ভিডিও নিয়েই আসরে নেমে পড়েছেন রবিউল। এমনকী হুমায়ুনের শাস্তির দাবীও করেছেন তিনি।

উল্লেখ্য, মুর্শিদাবাদে হুমায়ুন–রবিউল দ্বন্দ্ব নতুন কিছু নয়। ২০১১ সালে কংগ্রেসের টিকিটে ভোটে জেতেন হুমায়ুন কবীর। এরপর রেজিনগরের বিধায়ক হন তিনি। এরপর তৃণমূলে যোগ দেন হুমায়ুন। তখন বিধায়ক পদ ছেড়ে দেন।

আরও পড়ুন- উপস্থিতি মিলল না কেন্দ্রের, সুপ্রিম কোর্টে মুলতুবি রাখা হল ভোট পরবর্তী হিংসার মামলা

এরপর উপনির্বাচনে রবিউল আলম চৌধুরীর কাছে পরাজিত হন হুমায়ুন কবীর। কংগ্রেসের টিকিটে ভোটে জিত হাসিল করেন রবিউল। ২০১৬ সালের নির্বাচনেও কংগ্রেসের টিকিটে জেতেন তিনি। তারপর যোগ দেন তৃণমূলে। একুশের নির্বাচনে তৃণমূল কংগ্রেসের টিকিটে ভরতপুর থেকে জিতে বিধায়ক হন হুমায়ুন কবীর। আর রেজিনগর থেকে জিতে বিধায়ক হন রবিউল আলম চৌধুরী। সুতরাং দু’‌জনেই তৃণমূলের বিধায়ক। কিন্তু তবুও এই দুই যুযুধান পক্ষের দ্বন্দ্ব লেগেই রয়েছে।

You might also like
Comments
Loading...