সব খবর সবার আগে।

এ জোট কেমন জোট! ফের আব্বাসের গলায় কংগ্রেস বিরোধী সুর, এক নেতা মোদী, মমতার সঙ্গে যোগ রাখছেন বলে অভিযোগ

কালকে ব্রিগেডের মঞ্চেই পার্থক্যটা স্পষ্টভাবে চোখে পড়েছে। কংগ্রেসের প্রদেশ অধ্যক্ষ অধীর রঞ্জন চৌধুরীকে রীতিমতো কাল ব্রিগেডের মঞ্চে অপমান করেছেন পীরজাদা আব্বাস সিদ্দিকী।

বামেদের ব্রিগেডেই প্রশ্ন উঠেছিল সংযুক্ত জোটের ভবিষ্যৎ নিয়ে। আইএসএফকে নিয়ে কংগ্রেস যে খুব একটা খুশি নয়, তা বোঝা গিয়েছিল রবিবারের মেগা শো’তে।

আব্বাসের গলাতেও শোনা গিয়েছিল কংগ্রেস বিরোধী সুর। সোমবার বিস্ফোরক অভিযোগ করলেন ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্ট নেতা আব্বাস সিদ্দিকী। বললেন, “কংগ্রেসের এক নেতা মোদী ও মমতার সঙ্গে যোগ রাখছেন। ভোটের পর উঁচুপদ পেলে তৃণমূলকেই সমর্থন করবেন তিনি।” আব্বাসের এই অভিযোগ স্বাভাবিকভাবেই নতুন জল্পনার জন্ম দিয়েছে l

আরও পড়ুন:আজ থেকে আমজনতার টিকাকরণ কর্মসূচী শুরু, প্রথম টিকা নিলেন খোদ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী


তাৎপর্যপূর্ণভাবে, আসন্ন বিধানসভা নির্বাচনে আসন ছাড়া নিয়ে কংগ্রেস ও ভাইজানের দড়ি টানাটানি এতদিন ছিল চার দেওয়ালের মাঝে। রবিবার ‘ভাইজান’ই তা প্রকাশ্যে নিয়ে আসেন। ব্রিগেডের মঞ্চে ভারতীয় রাজনীতির অন্যতম চরিত্র অধীররঞ্জন চৌধুরীর উপস্থিতিতেই এই নবাগত রাজনৈতিক বলেন, “তোষণের নয়, অংশীদারির রাজনীতি করতে এসেছি।” মঞ্চ থেকেই তাঁর সমর্থকদের প্রতি বামেদের ভোট দেওয়ার নির্দেশ দিলেও অপর জোটসঙ্গী কংগ্রেস সম্পর্কে নীরব থাকেন ভাইজান। স্বাভাবিকভাবেই বিষয়টিকে যে তিনি ভালভাবে নিতে পারেননি, কালক্ষেপ না করে তা স্পষ্ট করে দিয়েছেন প্রদেশ সভাপতি। বুঝিয়ে দিয়েছেন, ইন্ডিয়ান সেকুলার ফ্রন্টকে এখনও তিনি জোটের অংশীদার মানতে নারাজ। রবিবার থেকে এই নিয়ে চাপানউতোর চলছেই। এসবের মাঝে গতকালের ঘটনার জন্য প্রকাশ্যে দুঃখপ্রকাশ করেন আইএসএফ নেতা আব্বাস সিদ্দিকী। যদিও নিজের অবস্থান থেকে সরেননি তিনি। 

You might also like
Comments
Loading...