রাজ্য

মন্ত্রিত্ব পেয়েই বঙ্গভঙ্গের দাবী নিয়ে সরব জন বারলা, ‘কেন্দ্রের সঙ্গে কথা বলব’, মন্তব্য নয়া কেন্দ্রীয় মন্ত্রীর

যেমনটা ভাবা হয়েছিল, তেমনটাই হল। মন্ত্রী হওয়ার পরই ফের একবার বঙ্গভঙ্গের দাবী নিয়ে সুর চড়ালেন আলিপুরদুয়ারের সাংসদ্দ তথা কেন্দ্রীয় মন্ত্রী জন বারলা। উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য হিসেবে প্রতিষ্ঠা করার দাবী থেকে যে তিনি একটুও সরে আসেননি, তা তাঁর বক্তব্য থেকেই স্পষ্ট।

নিজের এই দাবীর স্বপক্ষে যুক্তিও দিয়েছেন জন বারলা। তাঁর দাবী, “উত্তরবঙ্গকে স্বাধীন রাজ্য করার দাবি প্রায় ১০০ বছরের পুরানো। এটা স্থানীয় জনগণের দীর্ঘ সময়ের দাবি। বিষয়টি নিয়ে কেন্দ্রের সঙ্গে কথা বলব। জনতার দাবিকে দাবিয়ে রাখা যায় না। তবে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হিসাবে শপথ নেওয়ার ওই মুহূর্তে এর চেয়ে বেশি কিছু বলতে চাই না”।

আরও পড়ুন- সৌমিত্রর পদত্যাগের টালবাহানা নিয়ে তোপ দিলীপের! জোকার, অর্বাচীন বলে কটাক্ষ বিজেপি সাংসদকে

উত্তরবঙ্গকে নানানভাবে বঞ্চিত করেছে রাজ্য সরকার, এমন অভিযোগ তুলে উত্তরবঙ্গকে আলাদা রাজ্য বা কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল হিসেবে পরিণত করার দাবী তোলেন জন বারলা। এতদিন পৃথক রাজ্যের দাবীতে আন্দোলন করা গ্রেটারের একাংশ, কেপিপি-সহ একাধিক আঞ্চলিক দল জন বারলার পাশে থাকার আশ্বাস দিয়েছেন।

শুধু তাই-ই নয়, বিজেপিরও একাধিক বিধায়ক বঙ্গভঙ্গের দাবীকে সমর্থন জানিয়েছেন। কিন্তু বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ জন বারলার এই দাবীর সঙ্গে সহমত প্রকাশ করেননি। তিনি বারবার এই দাবীকে নাকোচ করেছেন। তিনি বলেছেন, এ দাবী জন বারলার ব্যক্তিগত, এমন কোনও দাবীর কথা দলের তরফে বলা হয়নি।

আরও পড়ুন- ৭৫ বছরের পুরনো কৌশল দিয়েই ২০২৪-এর লোকসভায় বাজিমাত করতে চাইছেন মোদী, শাহ্’কে দেওয়া হল গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব

কিন্তু কোনও লাভ হয়নি। বারলা নিজের দাবী থেকে সরেন নি। এবার কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হওয়ার পর তিনি নিজের দাবী নিয়ে দ্বিগুণ উৎসাহে ময়দানে নেমেছেন। তবে এদিক থেকে কোচবিহারের সাংসদ নিশীথ প্রামাণিক এ বিষয়ে বেশ সাবধানী। তিনিও কেন্দ্রীয় মন্ত্রী হয়েছেন। এ বিষয়ে তাঁর বক্তব্য, “আজ সদ্য দায়িত্ব পেলাম। আগে গোটাটা বুঝে নিতে দিন”।

Related Articles

Back to top button