রাজ্য

রাজ্যে ঘটা ধ’র্ষ’ণকাণ্ডের প্রতিবাদীরা সব ‘নপুংসক’, তাদের ‘চাড্ডি-মাকু’ বলে কটাক্ষ করলেন কবীর সুমন, জোর বিতর্ক

হাঁসখালি থেকে শুরু করে পিংলা, বোলপুর, নামখানা রাজ্যের নানান জায়গা থেকে উঠে এসেছে ধ’র্ষ’ণের খবর। এমন আবগে হাঁসখালির ধ’র্ষ’ণকাণ্ডে মৃত নাবালিকাকে নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় যে মন্তব্য করেছেন, তাতে রাজ্যজুড়ে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

নানান মহল থেকে তীব্র প্রতিবাদ করা হয়েছে তাঁর এমন মন্তব্যের। রাজ্যের আইনশৃঙ্খলা নিয়েও উঠেছে প্রশ্ন। রাজ্যের একাধিক ধ’র্ষ’ণের ঘটনা নিয়ে যখন রাজ্য রাজনীতি উত্তাল, সেই সময় এই ঘটনায় প্রতিবাদীদের নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য করলেন কবীর সুমন।

রাজ্যের একাধিক ধ’র্ষ’ণের ঘটনা নিয়ে কোনও প্রতিবাদ করা দূর, বরং এই ঘটনায় যারা প্রতিবাদ গড়ে তুলছেন, তাদের ‘নপুংসক’ বলে কটাক্ষ করলেন কবীর সুমন। শুধু তাই-ই নয়, প্রতিবাদকারীদের ‘চাড্ডি ও মাকু’ বলেও তোপ দাগলেন তিনি। যে কবীর সুমন একসময় কামদুনি ধ’র্ষ’ণকাণ্ড নিয়ে সরব হয়ে রাস্তায় নেমেছিলেন, সেই কবীর সুমনের থেকে ধ’র্ষ’ণ নিয়ে এমন মন্তব্য বেশ হতবাক করেছে সকলকে।

আজ, বুধবার সোশ্যাল মিডিয়ায় কবীর সুমন লেখেন, “শুরু হয়ে গেছে ফোনে নপুংশকদের আক্রমণ ‘রাজ্যজুড়ে ধর্ষণের’ বিরুদ্ধে। রাজ্যজুড়ে। গলার আওয়াজ আর কথা শুনেই বোঝা যায় চাড্ডি+মাকু। পারফেক্ট ক্লোন। ব্লক করতে করতে ক্লান্ত”।

শুধু তাই-ই নয়, এই পোস্টের কমেন্ট সেকশনে তিনি প্রতিবাদীদের ‘রাজনীতিসচেতন বঙ্গ মধ্যবিত্ত’ বলেও কটাক্ষ করেছেন বলে দেখা গিয়েছে।

কবীর সুমনকে নানান সময় দেখা গিয়েছে বাংলার নানান ঘটনা নিয়ে প্রতিক্রিয়া জানাতে। কিন্তু বর্তমানে আনিস খান হত্যাকাণ্ড থেকে শুরু করে বগটুই গণহত্যাকাণ্ড, বা অন্য কোনও অন্যায়ের বিরুদ্ধেই মুখ খুলতে দেখা যায়নি তাঁকে। তাহলে কী ধরে নেওয়া যেতে পারে যে তিনি আজকাল বেশ ভাবনাচিন্তা করে নির্দিষ্ট কিছু বিষয় নিয়েই সোচ্চার হন?

এর আগে বগটুই গণহত্যা কাণ্ড নিয়ে এক সংবাদমাধ্যমের তরফে কবীর সুমনকে প্রশ্ন করা হলে তিনি কোনও মন্তব্য করতে রাজি হন না। আর এবার রাজ্যের একাধিক ধ’র্ষ’ণকাণ্ডে শিল্পীর এমন মন্তব্যকে ঘিরে কার্যত সকলের মধ্যেই উষ্মা দেখা দিয়েছে।

Related Articles

Back to top button