রাজ্য

বিজেপির রাজ্য কমিটির বৈঠকে গরহাজির কৈলাস ও রাজীবের, তৃণমূলেই কী ফিরছেন রাজীব? উঠছে প্রশ্ন

আজ রয়েছে বিজেপির রাজ্য কমিটির বৈঠক। বেশ মহা সমারোহেই শুরু হয় এই বৈঠক। মঙ্গলবার বিজেপির হেস্টিংসের কার্যালয়ের এই বৈঠকে বিজেপির একাধিক নেতারা যোগ দিলেও দেখা মিলল না রাজ্য বিজেপির কেন্দ্রীয় পর্যবেক্ষক কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও বিজেপি নেতা রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়ের। এই নিয়ে শুরু বিতর্ক।

বিজেপির এই রাজ্য কমিটির বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষ-সহ রাজ্যের শীর্ষ নেতারা। আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল কৈলাস বিজয়বর্গীয় ও রাজীব বন্দ্যোপাধ্যায়কেও। রাজীব আসবেন বলেও জানান। কিন্তু কৈলাসের অনুপস্থিতি সম্পর্কে কারোরই কিছু জানা নেই। তবে এমন পরিস্থিতিতে বেশ অস্বস্তিতেই পড়েছে গেরুয়া শিবির।

আরও পড়ুন- রাজ্যে ভোট পরবর্তী হিংসা সম্পূর্ণ পূর্ব পরিকল্পিত, জড়িত থাকতে পারে সন্ত্রাসবাদীরাও, রিপোর্ট জমা NIA-এর

এই বৈঠকেই ঠিক হতে চলেছে আগামীতে পথ চলার নকশা। একুশের নির্বাচনে বিজেপির পরাজয়ের বিষয়েও এই বৈঠকে আলোচনা হয়েছে বলে খবর। ভার্চুয়াল এই বৈঠকে কেন্দ্রীয় নেতাদের মধ্যে যোগ দেন শিবপ্রকাশ, অরবিন্দ মেনন, অমিত মালব্য-সহ আরও অনেকেই।

তবে কৈলাস বিজয়বর্গীয়ের বৈঠকে যোগ না দেওয়া নিয়ে জল্পনা তুঙ্গে। কেউ কেউ বৈঠকেই বলছেন, “যোগ দেবেন কোন মুখে? ওঁর জন্যই তো আজ এই হাল”। তাহলে কী দলের অন্দরের বিক্ষোভের মুখে পড়ার ভয়েই তিনি বৈঠক এড়ালেন?

অন্যদিকে, এই বৈঠকে রয়েছেন দিলীপ ঘোষ, শুভেন্দু অধিকারী, সুভাষ সরকার- সহ আরও অনেকেই। কিন্তু রাজীব কেন নেই? তাহলে কী শুভেন্দুর জন্যই রাজীবের এই অনুপস্থিতি? অনেকেরই মতে, রাজীব তৃণমূলে ফিরছেন। তাহলে কী তৃণমূলের সঙ্গে রাজীবের রফা চূড়ান্ত? এই কারণেই তিনি এলেন না? এমন একাধিক প্রশ্ন উঠছে রাজনৈতিক মহলে।

আরও পড়ুন- ফের তুঙ্গে নবান্ন-রাজভবন সংঘাত! বিধানসভা অধিবেশনে ভাষণের খসড়াতে আপত্তি রাজ্যপালের, তলব মুখ্যমন্ত্রীর

বিজেপির এই রাজ্য কমিটির বৈঠকে রাজীব না থাকায় তৃণমূল কংগ্রেসের রাজ্য সম্পাদক কুণাল ঘোষের সঙ্গে রাজীবের একান্তে সাক্ষাতের প্রসঙ্গটিও উঠে আসে। তবে এ বিষয়ে বিজেপি নেতারা কোনও মন্তব্য করতে চাননি।

Related Articles

Back to top button