রাজ্য

দলীয় শৃঙ্খলা বিরোধী মন্তব্য অভিষেকের, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিরুদ্ধাচরণ করেছেন, অভিষেককে নজিরবিহীন তোপ কল্যাণের

কিছুদিন আগেই অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় নিজের সংসদীয় এলাকা ডায়মন্ড হারবারে গিয়ের বলেছিলেন যে আপাতত দু’মাসের জন্য ভোট-মেলা সব বন্ধ থাকা উচিত। তিনি এও জানান যে করোনা মোকাবিলার জন্য তিনি নিজের সংসদীয় এলাকায় কর্মসূচি নেবেন। সেই অনুযায়ী, গতকাল স্বামী বিবেকানন্দের জন্মদিনের দিনটি বেছে নেন তিনি। তৃণমূলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের এই উদ্যোগের প্রশংসা করেন দলের প্রবীণ নেতারা।

কিন্তু এই প্রসঙ্গেই অভিষেককে তীব্র তোপ দাগেন তৃণমূল সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়। অভিষেকের মন্তব্য নিয়ে তিনি বলেন, “অভিষেকের মন্তব্য দলীয় শৃঙ্খলা বিরোধী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় সরকারের বিরুদ্ধাচরণ করেছেন। রাজ্য সরকারকে চ্যালেঞ্জ করেছেন”। সাংসদের এই মন্তব্য নিয়েই দলের অন্দরে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

ঠিক কী বলেছিলেন অভিষেক?

কিছুদিন আগে নিজের সংসদীয় এলাকায় গিয়ে অভিষেক বলেন যে বর্ষবরণ, বর্ষবিদায়, বড়দিন এসব নিয়ে এখন মাথা ঘামিয়ে লাভ নেই। দু’মাস সব বন্ধ থাক। মানুষ বাঁচলে তবে তো রাজনীতি। তবে এই উৎসব নিয়েই ঠিক উল্টো মন্তব্য করতে শোনা গিয়েছিল মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে। গঙ্গাসাগরের মেলা প্রসঙ্গে তিনি বলেছিলেন, “এটা মানুষের মেলা। মেলা বন্ধ করব কী করে? এগুলির সঙ্গে অনেকের রুটি-রোজগার জড়িয়ে”।

দলনেত্রীর এমন মন্তব্যের প্রেক্ষিতে অভিষেকের এমন মন্তব্যকেই দলবিরোধী বলতে চেয়েছেন কল্যাণ। তিনি বলেন, “দলের সর্বভারতীয় সাধারণ সম্পাদকের পদটি সর্বক্ষণের। ফলে স্বার্থবাহী কোনও বিষয় নিয়ে সাধারণ সম্পাদকের কোনও ব্যক্তিগত অভিমত থাকতে পারে না। তিনি কিছু বললে তা দলের বক্তব্য বলে ধরে নিতে হয়”।

করোনা সংক্রমণের বৃদ্ধি নিয়ে অভিষেককে আক্রমণ শানিয়ে কল্যাণ বলেন, “বর্ষবরণের দিনে ডায়মন্ড হারবারে ফুটবল প্রতিযোগিতা হয়েছিল। মুম্বইয়ের শিল্পী এনে জলসার আয়োজন হয়েছিল। সেই সময় সংক্রমণ বাড়ে নি”?

Related Articles

Back to top button