রাজ্য

Kalyan Banerjee: ‘নেশাখোর, তোলাবাজ চরিত্রহীন অকল্যাণের থেকে মুক্তি চাই’,অভিষেকের বিরুদ্ধে বলায় কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে ক্ষোভ ছড়াচ্ছে শ্রীরামপুরে!

আমাদের বাংলায় একটা প্রবাদ বাক্য আছে একা রামে রক্ষা নেই সুগ্রীব দোসর। বর্তমানে ঠিক যে অবস্থাটা হয়েছে রাজ্যের শাসক দলের।এমনিতেই তৃণমূলের সামনে এখন নির্বাচনী চিন্তা তার ওপর গোদের ওপর বিষফোঁড়া মতো লেগে রয়েছে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় কুনাল ঘোষ আর অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় এর ত্রিকোণ ঝামেলা।বেশ কিছুদিন আগে অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায় বিরুদ্ধে মুখ খুলেছেন শ্রীরামপুরের সাংসদ কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায়।

আর তারপর থেকেই গোটা রাজ্যের তৃণমূল কর্মীরা রে রে করে ঝাঁপিয়ে পড়েছেন শ্রীরামপুরের সাংসদ এর ওপর। সোমবার সকাল থেকে হুগলির রিষড়ায় দেখা যাচ্ছে নতুন কিছু পোস্টার যেখানে লেখা রয়েছে নেশাখোর চরিত্রহীন তোলাবাজ অকল্যাণের হাত থেকে মুক্তি চাই। আর নয় কল্যাণ, দাদা তুমি বিচার করো দিদি তুমি বিচার করো, এইরকম লেখায় ভরে গেছে গোটা রিষড়া শহর।

জেলার তৃণমূল নেতৃত্ব বলছেন কারা এই পোস্টার লাগিয়েছে তা তারা জানেন না। তবে গোটা ঘটনা নিয়ে দু’ভাগ হয়ে গেছে হুগলি জেলা তৃণমূল নেতৃত্ব। একদল অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়ের সমর্থনে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট এবং কমেন্ট করে যাচ্ছেন। শ্রীরামপুরে কল্যাণ অকল্যাণ বলতেও দেখা গেছে অনেক কর্মীকে। আবার কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় এর অনুগামীরা বলছেন যে কল্যাণদাকেই চাই।

আবার দলের অভ্যন্তরে দলের শীর্ষ নেতারা কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় এর বিরুদ্ধে তোপ দেগেছেন। আরামবাগের তৃণমূল সাংসদ অপরুপা পোদ্দার যেমন রিষড়ার বাসিন্দা। তিনি সোজা বলছেন যে কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় কে চিফ হুইপ পথ থেকে পদত্যাগ করার জন্য।অন্যদিকে মদন মিত্রও কল্যাণ বন্দ্যোপাধ্যায় বিরুদ্ধে বিস্ফোরক মন্তব্য করেছেন। সবমিলিয়ে তৃণমূল এখন প্রচন্ড ব্যতিব্যস্ত তাদেরই দলীয় কোন্দল সাধারণ মানুষের সামনে থেকে লুকাতে।

Related Articles

Back to top button