সব খবর সবার আগে।

মমতার রাজ্যে সরকারী হাসপাতালের অবস্থা বেহাল, বেড থাকা সত্ত্বেও অন্তঃসত্ত্বাদের ভর্তি নিল না কাটোয়া মহকুমা হাসপাতাল

পূর্ব বর্ধমানের কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালে উত্তপ্ত পরিস্থিতি। হাসপাতালের বাইরে দাঁড়িয়ে রইলেন প্রসব যন্ত্রণায় কাতরানো আয়েশা খাতুন, বিদিশা চক্রবর্তী-সহ প্রায় দশ জন অন্তঃসত্ত্বা মহিলা। অভিযোগ, হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ থেকে জানানো হল যে ভর্তি নেওয়া হবে না কোনও রোগীকে। এর জেরেই চাঞ্চল্যকর পরিস্থিতি তৈরি হয় হাসপাতাল চত্বরে। বিক্ষোভ দেখান রোগীর পরিবারের লোকজন।

ঘটনাটি ঘটেছে মঙ্গলবার সকালে। রোগীর পরিবারের অভিযোগ কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে ৬০টি বেড রয়েছে। গত কয়েক বছরে বেশ উন্নতি হয়েছে এই হাসপাতালের। কিন্তু এরপরও বেড থাকা সত্ত্বেও অন্তঃসত্ত্বা মহিলাদের ভর্তি নিতে অস্বীকার করল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তাদের তরফে বলা হয় যে রোগীকে নিয়ে যেন অন্য হাসপাতালে যাওয়া হয়। এরপরই বিক্ষোভ দেখাতে শুরু করেন রোগীর পরিবারের লোকজন। এরপর পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।

আরও পড়ুন- আমার সঙ্গে বিতর্কে বসুন, ত্রিপুরার উন্নয়নের কাছে ১০ মিনিটও টিকতে পারবেন না, মমতাকে চ্যালেঞ্জ বিপ্লবের

এই বিশৃঙ্খলার মধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়েন ওই ১০ অন্তঃসত্ত্বা মহিলা। তাদের অবস্থা দেখে পরিবারের লোকজন বেসরকারি হাসপাতালে ভর্তি করেন রোগীদের। হাসপাতাল সূত্রে জানানো হয়েছে যে হাসপাতালের প্রসূতি বিভাগে প্রতিদিন গড়ে ১০-১৫ জন অন্তঃসত্ত্বা মহিলাকে ভর্তি করা হয়। শুধু বর্ধমান নয়, বীরভূম, মুর্শিদাবাদ থেকেও রোগীরা আসেন এই হাসপাতালে।

অন্যদিকে, অভিযোগ পেয়ে ইতিমধ্যেই ব্যবস্থা নিয়েছেন কাটোয়া মহকুমা হাসপাতালের সুপার ডঃ নবারুণ গুপ্ত। তিনি জানান যে এদিন যারা হাসপাতালে ভর্তি হতে এসেছিলেন, তাদের পরিবারের সঙ্গে যোগাযোগ করা হয়েছে। ওই অন্তঃসত্ত্বাদের এই হাসপাতালেই ভর্তি করা হবে বলে জানান তিনি। তাঁর কথায়, “একটা ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে। প্রসূতিদের ভর্তির সময় কিছু একটা সমস্যা দেখা দেয়। গোটা বিষয়টি খতিয়ে দেখা হচ্ছে”।

_taboola.push({mode:'thumbnails-a', container:'taboola-below-article', placement:'below-article', target_type: 'mix'}); window._taboola = window._taboola || []; _taboola.push({mode:'thumbnails-rr', container:'taboola-below-article-second', placement:'below-article-2nd', target_type: 'mix'});
You might also like
Comments
Loading...